স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। ছবি : সংগৃহীত

কিশোরদের উন্নয়ন সাধনে এবং তাদের অপরাধ দমনে সন্ধ্যার পর যেন কোন কিশোর বাড়ির বাইরে না থাকে সেই দিকে গুরুত্ব দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তিনি বলেন, সন্ধ্যার পর কিশোররা বাড়ির বাইরে থাকবে না। তারা থাকবে পড়ার টেবিলে, না হয় বাড়িতে। আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী যথেষ্ট সজাগ ও সতর্ক রয়েছে। অপরাধী যেই হোক, তার বয়স যাই হোক, তাদের জন্য শাস্তির ব্যবস্থা আছে।

৭ সেপ্টেম্বর শনিবার রাজধানীর মিরপুরে বাংলাদেশ অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসার্স কল্যাণ সমিতি আয়োজিত ‘মাদক, সন্ত্রাস, শিশু নির্যাতন, ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ, ইন্টারনেটের অপব্যবহার প্রতিরোধে করণীয়’  শীর্ষক আলোচনা সভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

অভিভাবকদের উদ্দেশে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অভিভাবকদের আহ্বান জানাবো, সন্ধ্যার পর যেন কিশোররা বাড়ির বাইরে না থাকে। আপনারা লক্ষ্য রাখুন, সবাই সচেতন থাকুন, আপনার ছেলে কি করছে, কাদের সঙ্গে মিশছে। অপরাধ করে ফেললে কেউ পার পাবে না।

মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল আরো বলেন, আমরা সন্ত্রাস জঙ্গিবাদের উত্থান দেখেছি। একটি মহল ঘাপটি মেরে বসে থাকে, দেশকে অকার্যকর করার জন্য। তারা একের পর এক ঘটনা ঘটিয়ে আমাদের বিপদের সম্মুখীন করেছে। সেই জায়গা থেকে আজ আমরা ঘুরে দাঁড়িয়েছি ।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমি সবসময় বলি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দক্ষতায় আমরা এর সমাধান পেয়েছি। কিন্তু শুধুই আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী না। আমাদের ঘুরে দাঁড়ানোর মূলমন্ত্র ছিল জনগণ।

তিনি বলেন, সম্প্রতি দু’একটি ঘটনা ঘটিয়ে জঙ্গিরা তাদের অস্তিত্বের জানান দিতে চাচ্ছে। কিন্তু সেটা আর এই দেশে সম্ভব নয়, পুলিশ বাহিনী সতর্ক আছে। ১০ বছর আগের পুলিশ আর এখনকার পুলিশের মধ্যে অনেক পার্থক্য। এরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শে আদর্শিত।

আজকের পত্রিকা/কেএফ