আমাদের সবারই জীবন সঙ্গীর কাছে নানা প্রত্যাশা থাকে। ছবি: সংগৃহীত

আমাদের সবারই সঙ্গীর কাছে নানা ধরনের প্রত্যাশা থাকে। প্রত্যাশা থাকা খুবই যুক্তিসঙ্গত, তবে সব ধরনের প্রত্যাশা রাখাও অযৌক্তিক। মাঝেমধ্যে সঙ্গীর সঙ্গে দূরত্ব সৃষ্টি হয়, ভুল প্রত্যাশার কারণে। চলুন জেনে নিই সুন্দর ও সুখী সম্পর্ক রাখার জন্য সঙ্গীর কাছে যেসব প্রত্যাশা করা একেবারেই উচিত নয়-

তার মনে কী আছে?

সব সম্পর্কের মতো এই সম্পর্কেও একটি সীমানা আছে। ছবি: সংগৃহীত

সব সময় আপনার সঙ্গীর মন পড়া সম্ভব না। এক সঙ্গে অনেক বছর কাটিয়েছেন, তার মানে এই না যে- তার মনের সব খবর আপনি জানতে পারবেন। সব সম্পর্কের মতো এই সম্পর্কেও কিছু সীমাবদ্ধতা আছে। সেই সীমানা অতিক্রম করা উচিত নয়।

নিখুঁত

সব কিছুই নিখুঁতভাবে হবে তা প্রত্যাশা করা যায় না। ছবি: সংগৃহীত

সব কিছুই নিখুঁতভাবে হবে তা প্রত্যাশা করা যায় না। আমরা মানুষ, রোবট না। অনেক কিছুতেই ভুল থেকে যাবে, সেটা প্রয়োজনে শুধরানো যায়। কিন্তু আপনারা যদি দু’জন দু’জনের ভুলভাল ধরার জন্য সব সময় ওঁত পেতে বসে থাকেন, তাহলে সুখে থাকতে পারবেন না।

একই মতামত

আপনার সঙ্গীর বিভিন্ন জিনিসের উপর ভিন্ন মতামত থাকলে এটি সম্পূর্ণ ঠিক আছে। ছবি: সংগৃহীত

কোনো মানুষই আরেকটি মানুষের মতো একই ব্যক্তিত্ব বা মন-মানসিকতার হন না এবং তাদের দৃষ্টিভঙ্গিও এক হতে পারে না। আপনার সঙ্গীর বিভিন্ন জিনিসের উপর ভিন্ন মতামত থাকলে, এটা ভুল কিছু না। আপনার সঙ্গীকে সেভাবেই গ্রহণ করুন, একে অপরের মতামতকে সম্মান করুন এবং দম্পতি হিসাবে একত্রে থাকার চেষ্টা করুন।

সব সময় একই রকম

আপনিও দশ বছর আগে নিশ্চয়ই এমন ছিলেন না, যেমনটা এখন আছেন। ছবি: সংগৃহীত

সময়ের সঙ্গে মানুষ পরিবর্তন হয়। অভিজ্ঞতা আমাদের চিন্তা ভাবনা পাল্টে দেয়। এখন আপনি যার সঙ্গে আছেন, সে হয়তো বা দশ বছর আগে এ রকম ছিলেন না। আপনিও দশ বছর আগে নিশ্চয় এমন ছিলেন না, যেমনটা এখন আছেন। চিরকাল আপনার সঙ্গীও একই রকম থাকবেন, এ রকম প্রত্যাশা করা নিছক বোকামি।

যৌনমিলন

দুজনের ইচ্ছাতেই যৌনমিলনে লিপ্ত হওয়া উচিত। ছবি: সংগৃহীত

বিয়ে হয়ে গেলেই যখন ইচ্ছা তখন যৌনমিলন করা যাবে না। আপনার সঙ্গীর ইচ্ছা-অনিচ্ছার কথা জানতে হবে এবং তার ইচ্ছাকেও যথেষ্ট সম্মান দিতে হবে। দু’জনের ইচ্ছাতেই যৌনমিলনে লিপ্ত হওয়া উচিত।

আজকের পত্রিকা/রিয়া/সিফাত

SOURCEই টাইমস