ভারতের গোয়েন্দারা বলছেন, পিছনে যিনি দাঁড়িয়ে ছিলেন, তিনিই ফাতিমা। ছবি: সংগৃহীত

শ্রীলঙ্কায় ২১ এপ্রিল রবিবার ইস্টার সানডে উদযাপনের সময় গির্জা ও হোটেলে ভয়াবহ বোমা হামলার ঘটনায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৩৫৯ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৫০০ জনেরও বেশি মানুষ।

এই আত্মঘাতী হামলাকারীদের মধ্যে একজন নারীও আছেন বলে দাবি করেছেন ভারতের গোয়েন্দারা। ওই নারীর নাম ফাতিমা ইব্রাহিম। তিনি শ্রীলঙ্কার কোটিপতি ব্যবসায়ী ইনসাফ আহমদ ইব্রাহিমের স্ত্রী।

ভারতের গোয়েন্দা বাহিনীর বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ফার্স্টপোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হামলাকারী হিসেবে আন্তর্জাতিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) তাদের যে আট সদস্যের ছবিসংবলিত ভিডিও প্রকাশ করেছে সেখানে ফাতিমাও আছেন। ওই ছবিতে সাতজনকে এক সারিতে ও পেছনে একজনকে দাঁড়ানো অবস্থায় দেখা যায়। ভারতের গোয়েন্দারা বলছেন, পেছনে যিনি দাঁড়িয়ে ছিলেন, তিনিই ফাতিমা। আর ফাতিমার ঠিক সামনেই তার স্বামী ইনসাফ দাঁড়িয়ে ছিলেন।

ফার্স্টপোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শ্রীলঙ্কায় সিরিজ বোমা হামলার পরপরই ২১ এপ্রিল রবিবার রাতেই ইব্রাহিমের বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্টে তল্লাশি চালায় পুলিশ। এ সময় অন্তঃসত্ত্বা ফাতিমা তার তিন সন্তানকে নিয়ে আত্মঘাতী হন। ইনসাফের পরিবার তার আরেক ভাই ইলহাম ইব্রাহিমের সঙ্গে তিনতলাবিশিষ্ট ওই অ্যাপার্টমেন্টে থাকতেন।

ইব্রাহিমের পরিবার শ্রীলঙ্কার শীর্ষ ব্যবসায়ীদের মধ্যে অন্যতম। ইনসাফ ইব্রাহিমের বাবা মোহাম্মদ ইউসুফ ইব্রাহিম কোটিপতি মসলা ব্যবসায়ী। ইনসাফের মূল ব্যবসা তামা দিয়ে তৈরি পণ্য। ভারতের গোয়েন্দারা বলছেন, তার এক কারখানায় হামলার বোমাগুলো প্রস্তুত করা হয়েছে। হামলার ঘটনার পরপরই গভীর রাতে ইনসাফ ইব্রাহিমের তামার কারখানা থেকে কারাখানা ব্যবস্থাপকসহ নয়জন শ্রীলঙ্কান নাগরিককে গ্রেফতার করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

ইনসাফ ইব্রাহিমের বাবা ইউসুফ ইব্রাহীম শ্রীলঙ্কার বামপন্থী দল জনতা বিমুখী পেরামুনা পার্টির হয়ে নির্বাচনও করেছিলেন। তিনি শ্রীলঙ্কার বর্তমান শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী ঋষথ বাথিউডেনের ঘনিষ্ঠ বন্ধু হিসেবে পরিচিত। এছাড়াও সাবেক প্রেসিডেন্ট রাজাপক্ষের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানেও তাকে দেখা গেছে।

আজকের পত্রিকা/বিএফকে/সিফাত