আহত এক মহিলা

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার ভুতুলিয়া এলাকায় ধান মাড়াই ও জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় কমপক্ষে ৫জন আহত হয়েছে। এছাড়া প্রতিপক্ষের ভয়ে আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে ওই পরিবার।

এলাকাবাসী ও প্রত্যাক্ষদর্শীরা জানায়, শ্রীপুর উপজেলার ভুতুলিয়া এলাকার আমিন উদ্দিনের সঙ্গে প্রতিবেশী ইয়াকুব আলীর দীর্ঘ দিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ রয়েছে। গত ৩০ নভেম্বর তাদের বাড়ির পাশে ইয়াকুব আলীর জমিতে ধান মাড়াই করছিল আমিন উদ্দিন। এ সময় ইয়াকুব আলী তার জমিতে ধান মাড়াই করতে নিষেধ করে। পরে আমিন উদ্দিন ধান নিয়ে সেখান থেকে চলে যায়। এক পর্যায়ে ইয়াকুব আলী তার ক্ষেতের ধান নিয়ে আমিন উদ্দিনের জমির উপর দিয়ে যাচ্ছিল।

এ সময় আমিন উদ্দিন তার জমির উপর দিয়ে যেতে নিষেধ করে ইয়াকুব আলীকে। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ইয়াকুব আলীর লোকজন আমিন উদ্দিনের লোকজনের উপর হামলা করে। এ সময় প্রতিপক্ষের হামলায় আমিন উদ্দিন (৫৫), তার বোন গোলেছা বেগম, ভাগিনা বাবুল, ভাতিজা খলিল ভাতিজার স্ত্রী কল্পনা আক্তারসহ ৫/৭জনকে মারধর ও নিলাফুলা জখম করে। হামলায় আমিন উদ্দিনের বোন গোলেছা বেগমকে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় আমিন উদ্দিন শ্রীপুর থানায় ইয়াকুব আলীসহ ৫জনের নামে এবং অজ্ঞাত আরো ৪/৫জনকে আসামী করে একটি অভিযোগ দায়ের করে।

আমিন উদ্দিন জানান, আমরা নিরীহ মানুষ। ইয়াকুব আলীর ছেলে ছামান মিয়া টাঙ্গাইলের ডিবি পুলিশের উপ-সহকারী পরিদর্শক থাকায় তার কথা বলে আমাদের মারপিট খুন জখমের ভয় দেখায়। আমাদের জমি জমা জবর দখল করে নিবে বলে হুমকি দিচ্ছে। আমাদের নামে নামজারি করা থাকলেও ৭৯ শতাংশ জমি ইয়াকুব আলী জবর দখল করে রেখেছে।

এব্যাপারে ইয়াকুব আলী বলেন, তাদের কোন জমি আমরা জবর দখল করিনি। তারা জমি পেলে নিয়ে যাবে আমরা বাধা দিবো কেন। এছাড়া কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তাদের সঙ্গে হাতাহাতি হয়েছে।

এব্যাপারে শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লিয়াকত আলী ব‌লেন, এঘটনায় এক‌টি অ‌ভি‌যোগ পাওয়া গে‌ছে। বিষয়‌টি তদন্ত করা দেখা হ‌চ্ছে।

-শহীদুল ইসলাম