দেশের শেয়ারবাজারে দরপতনের খবরে ঢাকার বনানীতে বিটিআই টাওয়ারের ১১তলা থেকে লাফ দিয়ে সানলাইফ ইন্স্যুরেন্সের আইটি বিভাগের প্রধান হুমায়ুন কবির (৫২) আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। খবর পেয়ে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে ঢামেক মর্গে প্রেরণ করেছে।

১৪ জানুয়ারি সোমবার নিজ অফিসের ১১তলার জানালা দিয়ে তিনি লাফিয়ে পড়েন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

তবে হুমায়ুন কবির কীভাবে ১১তলা থেকে নিচে পড়েছেন তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপে তার মৃত্যুর বিষয়টি ভাইরাল হয়েছে।

এ বিষয়ে সানলাইফ ইন্স্যুরেন্সের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) একেএম শরিফুল ইসলাম গণমাধ্যমকে সবলেন, হুমায়ুন কবির প্রতিষ্ঠানটির আইটি বিভাগের প্রধান ছিলেন। ঘটনার সময় তিনি রুমে একা ছিলেন। সঙ্গে সঙ্গে অপর কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে যান।

ফেইসবুকে শেয়ারবাজারের বিনিয়োগকারীদের গ্রুপে একজন বিনিয়োগকারীর বনানীর বিটিআই টাওয়ার থেকে লাফিয়ে আত্মহত্যার খবর প্রকাশের বিষয়ে জানতে চাইলে একেএম শরিফুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি তিনি শুনেছেন।

খবর পেয়ে বনানী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তার লাশ উদ্ধার করে।

বনানী থানার ওসি নুরে আজম মিয়া গণমাধ্যমকে বলেন, বিটিআই টাওয়ার ১১তলায় সানলাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির আইটি প্রধান হিসেবে কর্মরত ছিল হুমায়ুন। অফিসে থাকা অবস্থায় হঠাৎ অফিসের জানালা দিয়ে নিচে লাফিয়ে পড়েন তিনি। লাফ দেওয়ার নেপথ্যে আমরা শেয়ারবাজারে লোকসানের কথা শুনেছি। তবে বিষয়টি নিশ্চিত নয়। ধারণা করা হচ্ছে এটি আত্মহত্যা। এ বিষয়ে জানার জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে।

মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।