মাহমুদ উল্লাহ্‌
বিজনেস করেসপন্ডেন্ট

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। ছবি : ইউএনবি

অর্থনৈতিক ও সেবার বিষয় লক্ষ্য রেখেই পানগাঁও অভ্যন্তরীণ কন্টেইনার টার্মিনাল (আইসিটি) নির্মিত হয়েছে। ব্যবসায়ীরাসহ সংশ্লিষ্টরা এর উপকার ভোগ করছে। পানগাঁও টার্মিনালকে কর্মচাঞ্চল্য হিসেবে গড়ে তুলতে এর সুযোগ-সবিধা বৃদ্ধি করা হবে। পানগাঁওকে লাভজনক বন্দরে পরিণত করতে ব্যবসায়ী, কাস্টমস বিভাগসহ সংশ্লিষ্টদের সমন্বয়ে কাজ করতে হবে। টার্মিনালকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে সমস্যাগুলো চিহ্নিত করে সেগুলো সমাধান করা হবে। শিগগিরই পানগাঁও টার্মিনাল পুরোদমে পরিচালিত হবে।
নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী সোমবার ঢাকার কেরানীগঞ্জে পানগাঁও আইসিটি পরিদর্শন ও কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল জুলফিকার আজিজ, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. আব্দুস কুদ্দুস খান, বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর এম মোজাম্মেল হক, কাস্টমস কমিশনার ইসমাইল হোসেন সিরাজী, টার্মিনাল ম্যানেজার মো. সারওয়ার আলম, কমলাপুর আইসিডির ম্যানেজার আহমেদুল কবির উপস্থিত ছিলেন।
সভায় জানানো হয় যে, পানগাঁও আইসিটির কর্মচাঞ্চল্য বৃদ্ধির জন্য ট্যারিফ হ্রাস, জাহাজ ভাড়া হ্রাস, কমন ক্যারিয়ার এগ্রিমেন্ট, জাহাজের সিডিউল প্রণয়ন, ব্যাংকিং ব্যবস্থা, অভিন্ন ইনল্যান্ড হলেজ চার্জ নির্ধারণ, অনলাইনে ডেলিভারি ইত্যাদি সুযোগ-সবিধা বিদ্যমান রয়েছে।
সভায় আরো জানানো হয় যে, পানগাঁও আইসিটি ২০১৪ সালে ৯৮৪ টিইইউস এবং ২০১৮ সালে ২২,৫০৮ টিইইউস কন্টেইনার হ্যান্ডলিং করছে। পানগাঁও আইসিটি ২০১৩-১৪ অর্থবছরে প্রায় ১১ লাখ এবং ২০১৮-১৯ অর্থবছরে জানুয়ারি’১৯ পর্যন্ত চার কোটি ৮৮ লাখ টাকা আয় করেছে।
উল্লেখ্য, পানগাঁও টার্মিনালটি ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জ থানাধিন বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে পানগাঁও নামক স্থানে প্রায় ৮৯ একর জমির ওপর ২০১৩ সালে ৭ নভেম্বর উদ্বোধন করা হয়। টার্মিনালের জেটির দৈর্ঘ্য ১৮০ মিটার এবং প্রস্থ ২৬ মিটার। এর কন্টেইনার ধারণক্ষমতা ৩৫০০ টিইইউস (বিশ ফুট দৈর্ঘ্যের কন্টেইনার)। দু’টি মোবাইল হারবার ক্রেন, দু’টি স্ট্র্যাডেল ক্যারিয়ার, দু’টি সাইড লিফটার, দু’টি ট্রাক্টর টেইলার, তিনটি কার্গো ক্রেন এবং ১২টি ফর্ক লিফট দিয়ে টার্মিনালটি কন্টেইনার হ্যান্ডলিং করছে।
পানগাঁও-চট্টগ্রাম-পানগাঁও রুটে বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চারটি কন্টেইনারবাহি জাহাজ চলাচল করছে। বিআইডব্লিউটিসি’র দু’টি জাহাজকে উক্ত রুটে চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের আরো একটি জাহাজ চলাচলের জন্য প্রস্তুত আছে। এছাড়া কলকাতা হতে সরাসরি পানগাঁও আইসিটি চলাচলের জন্য নৌকল্যাণ অধিদপ্তরের একটি জাহাজ ও মেরিন ট্রাস্টের কয়েকটি জাহাজ যাতায়াত করছে।

আজকের পত্রিকা/জেবি