নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) গোলাপগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি মো. ইলিয়াছ বিন রিয়াছত বক্তব্য রাখছেন।

যে জাতি শৃঙ্খলাভাবে চলাফেরা করে সে জাতি তত বেশী উন্নয়নের শিখরে আরোহন করে বা করতে পারে। আর একটি সড়ক দুর্ঘটনা সারা জীবনের কান্না। সে জন্য শিশুদের ছোটবেলা থেকে তাদেরকে পড়াশুনার পাশাপাশি ট্রাফিক আইন বা নিরাপদে সড়কে চলাফেরার সচেতনতামূলক বিষয়ে শিক্ষা দিলে তারা সেই শিক্ষাই ভবিষ্যতে কাজে লাগাতে পারবে। শিশুদের পাশাপাশি অভিভাবকগণও সচেতন হতে হবে।

বুধবার (১৬ অক্টোবর) ২২ অক্টোবর জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষ্যে মাসব্যাপী জনসচেতনতামূলক কর্মসূচীর অংশ হিসেবে নিসচা গোলাপগঞ্জ উপজেলা শাখার উদ্যোগে ১নং হাজীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জনসচেতনতামূলক সভায় নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) গোলাপগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি মো. ইলিয়াছ বিন রিয়াছত উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

১নং হাজীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মমতা সুলতানা’র সভাপতিত্বে ও নিরাপদ সড়ক চাই নিসচা উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মনসুর হোসেন মুন্না’র পরিচালনায় সভা অনুষ্টিত হয়। সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা নিসচা’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আজিজ বাবর।

জনসচেতনতামূলক সভায় উপস্থিত ছিলেন, পিটিআই সমিতির সভাপতি মো. কবির আহমদ, বিশিষ্ট সমাজসেবী এম সিরাজুল ইসলাম, ফুলবাড়ী ইউ.পি সদস্য মো. আবুল কাশেম, নিরাপদ সড়ক চাই নিসচা উপজেলা শাখার সিনিয়র সহ সভাপতি গোলাম মোস্তফা মোসা, সহ সভাপতি শাফায়াৎ জামিল চৌধুরী, বিদ্যালয়ের শিক্ষক ফয়ছল আহমদ চৌধুরী, বিদ্যালয় মেনেজিং কমিটির সদস্য মো. বদরুল ইসলাম, নিসচা উপজেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক মো. সুমন আলী, সদস্য শামিম আহমদ, ফুলবাড়ী ইউপি শাখার রাশেদ আহমদ, আব্দুর রহমান, জাবেদ আহমদ সহ বিদ্যালয়ের শিক্ষক, অভিভাবক, মুরব্বিয়ান ও যুব সমাজ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বক্তারা চালকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা যদি ট্রাফিক আইন যথাযথভাবে অনুসরণ করে রোড সাইন কিংবা ট্রাফিক সিগন্যাল মেনে গাড়ী চালালে সড়ক দুর্ঘটনা অনেকাংশে কমিয়ে আনা সম্ভব। তার জন্য চালকদের সেটা সব সময় মেনে গাড়ী চলা জরুরী।

-নোমান মাহফুজ/গোলাপগঞ্জ