শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ি ফেরি

পদ্মানদীতে স্রোতের গতি বৃদ্ধি ও নাব্যতা সঙ্কটের কারনে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে ফেরী চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। রাত সাড়ে ৩ টা থেকে ফেরী চলাচল বন্ধ করেদেয় বিআইডব্লিউটিসি কতৃপক্ষ।

রোববার (২২ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে চারটি রো রোসহ আটটি ফেরি চলাচল শুরু করেছে। এর আগে ভোর রাত সাড়ে ৩টার দিকে নাব্যতা সংকটের কারণে ফেরি বন্ধ হয়ে যায়।

রবিবার সকালে মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটে ৫২ টি নাইটকোচ ২ শতাধিক ছোটগাড়ি ও ৪ শতাধিক ট্রাক পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে যানবাহনের চাপ বৃদ্ধি পেতে থাকে। যাত্রীদের দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে।

গত ৪/৫ দিন যাবত স্্েরাতের চাপে ফেরী চলাচল ব্যহত হয়েছে। ১৭টি ফেরীর মধ্যে ৮/ ১০ টি ফেরী দিয়ে যানবাহন পারাপার করা হয়েছিল। চ্যানেলের ঘুখে ফেরী প্রবেশ করার সময় স্রোতরে র চাপে ঘুরে যায় এবং বালু জমে যাওয়ায় কোথাও কোথাও আটকে যায়। লৌহজং টানিং পয়েন্টে গত রাতে কয়েক ঘন্টা ডুবোচরে দুটো ফেরী আটকা পড়েছিলো।

বিআইডব্লিউটিসি মাওয়া উপ-মহাব্যবস্থাপক নাছির মোহাম্মদ চৌধুরী জানান, নদীতে রোলিং বেশি ও পলি পরে নাব্যতা সঙ্কটের সৃষ্টি হয়েছে। রাত সাড়ে ৩ টা থেকে দুর্ঘটনা এড়াতে সকল ফেরী বন্ধ করে দেওয়া হয়। আমাদের মেরিন বিভাগ বিআইডব্লিউটিএ’র সাথে যোগাযোগ চালাচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিএ ড্রেজিং করে দিলে ফেরী চালু করা সম্ভব হবে। ঘাট এলাকায় ৫২ টি নাইটকোচ, দেড় শতাধিক ছোট গাড়ি ও ৩/৪ শত ট্রাক রয়েছে। আপাততঃ যানবাহন বিকল্প রাস্তায় চলাচলের জন্য বলা হয়েছে।

-এমইউএস