মাদারীপুরের শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়ার পথে গতকাল শনিবার রাতে ডেঙ্গু আক্রান্ত সুমি আক্তার নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। সুমি আক্তার শিবচরের কাঠালবাড়ি ঘাট এলাকার স্পীডবোট চালক আনোয়ার ফকিরের স্ত্রী। রাতেই তার লাশ কাঠালবাড়ি এলাকায় আনা হয়। এনিয়ে মাদারীপুরের এখন পর্যন্ত ৭ জন ডেঙ্গু রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

সংশ্লিস্ট সূত্রে জানা গেছে, ডেঙ্গুজ্বরে অসুস্থ হয়ে পড়লে গত ২০ আগষ্ট শিবচরের কাঁঠালবাড়ি এলাকার গৃহবধূ সুমি আক্তারকে (৩০) শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। তিনি হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন ছিলেন। শনিবার বিকেলে তার অবস্থার অবনতি হয়ে রাতেই তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়। কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌ-রুটের পদ্মা নদী পাড়ি দিয়ে ঢাকায় যাওয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়। সুমি দুই ছেলে ও এক মেয়ের জননী।

শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুল মোকাদ্দেস জানান, সুমি আক্তার ২০ আগষ্ট শিবচর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন।

শনিবার বিকেলে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ঢাকায় পাঠানোর পরামর্শ দেয়া হয়। শিবচর হাসপাতালে বর্তমানে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ২৪ জন রোগী ভর্তি আছে।