হেলমেট পরিধান করুন, যাত্রা পথে নিরাপদ থাকুন।

লালমনিরহাটে ট্রাফিক আইন বিষয়ক জনসচেতনতা বাড়াতে জেলায় প্রতিদিন জেলা পুলিশ হেলমেট পরিহিতদের শুভেচ্ছা ও আর যারা হেলমেট পড়েন নাই তাদের জরিমানা করছেন।

সড়ক দুর্ঘটনা রোধে জনসচেনতা মুলক প্রচারাভিযান এবং লিফলেট বিতরণ করেছে।

অব্যাহত এই জনসচেতনতায় মহাসড়কে মটরবাইক চালানোর সময় হেলমেট না পড়ায় জরিমানা থেকে রক্ষা পেলেন না এক পুলিশ সদস্যও।

হেলমেট ছাড়া মোটর সাইকেল চালানোর দায়ে ফখরুল ইসলাম নামে এক পুলিশ কনস্টবলের ওয়াকিটকি কেড়ে নিয়েছেন লালমনিরহাট পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক পিপিএম সেবা।

মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকালে শহরের মিশন মোড়ে ট্রাফিক আইন বিষয়ক জনসচেতনতা মুলক প্রচারাভিযানের সময় ওই পুলিশ কনস্টবলের ওয়াকিটকি কেড়ে নেন তিনি।

লিফলেট বিতরণ কার্যক্রম শুরু করার কিছুক্ষণ পরই গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি নামে। এসময় কার্যক্রম স্থগিত না করে পুলিশ সুপার রশিদুল হক সড়কেই দাড়িয়ে থাকেন এবং লিফলেট বিতরণ অব্যাহত রাখেন।

পরে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তার মাথার উপর ছাতা ধরেন।

পুলিশ কনস্টবল ফখরুল বাংলাদেশ পুলিশের টেলিকমিউনিকেশন বিভাগে লালমনিরহাট পুলিশ লাইনে কর্মরত।

লালমনিরহাট জেলা পুলিশের কন্ট্রোল রুম জানান, বাংলাদেশ পুলিশ রংপুর রেঞ্জের উপ মহাপরিদর্শকের (ডিআইজি) নির্দেশে সড়ক দুর্ঘটনা রোধে জনসচেতনা মুলক প্রচারাভিযানের অংশ হিসেবে লিফলেট বিতরন শুরু করে জেলা পুলিশ।

সকালে শহরের প্রাণ কেন্দ্র মিশন মোড়ে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক পিপিএম সেবা। এ সময় হেলমেটধারীদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান তিনি।

একই সময় মহাসড়কে হেলমেট ছাড়া মোটর সাইকেল চালানোর দায়ে পুলিশের টেলিকমিউনিকেশন বিভাগের কনস্টবল ফখরুল ইসলামের ওয়াকিটকি কেড়ে নেন এসপি রশিদুল হক। সেই সাথে তার ব্যবহৃত মোটর সাইকেলটিও থানা নিয়ে যাওয়া হয়।
এ প্রচারাভিযানে বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে মহাসড়কে দাঁড়িয়ে লিফলেট বিতরণ করেন এসপি রশিদুল হক।

হেলমেট ছাড়া চালকদের জরিমানার পাশাপাশি হেলমেট পরিহিতদের গোলাপ ফুল দিয়ে অভিবাদন জানান এসপি এসএম রশিদুল হক।

লালমনিরহাট পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক (পিপিএম) বলেন, ট্রাফিক আইনের সচেতনতা বৃদ্ধি ছাড়া সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করা সম্ভব না। তাই ঊর্দ্ধতন মহলের নির্দেশনায় লালমনিরহাট জেলা পুলিশ সড়ক দুর্ঘটনা রোধে ট্রাফিক আইন মেনে চলতে জনসচেতনতা বাড়াতে লিফলেটসহ বিভিন্ন প্রচারাভিযান চালানো হচ্ছে। শুধু জেলা শহরেই নয়, প্রতিদিন জেলার ৫টি থানায় একযোগে এ কর্মসুচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না/লালমনিরহাট