নদীবন্দরসমূহকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

লাগাতার বৃষ্টিতে শহর থেকে গ্রাম টইটম্বুর করছে পানিতে। আষাঢ়ের শুরুতে প্রচণ্ড দাবদাহ থাকলেও গত কয়েকদিনের বিরামহীন বৃষ্টি বর্ষার চিরচেনা রূপেই ধরা দিয়েছে। আবহাওয়া অধিদফতর থেকে পাওয়া তথ্য মতে, ১২ জুলাই শুক্রবার দুপুর ১২টা থেকে বেলা সোয়া ২টা পর্যন্ত সোয়া দুই ঘণ্টায় রাজধানী ঢাকায় ৪৯ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। এই ভারী বৃষ্টিপাত চলবে আরও দুইদিন।

এই ভারী বৃষ্টিপাত চলবে আরও দুইদিন। ছবি: সংগৃহীত

বৃষ্টির কারণে রাজধানীর অনেক এলাকাতেই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। যদিও শুক্রবার থাকায় তেমন একটা যানজট দেখা যায়নি কোথাও। এদিকে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র থেকে জানা গেছে, ভারী বৃষ্টির কারণে দেশের সব প্রধান নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। দেশের উত্তর-পূর্ব এবং দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে আগামী ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টায় মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে। কোথাও কোথাও অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে। এ কারণে আগামী ৭২ ঘণ্টায় দেশের সব নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেতে পারে বলে জানা গেছে।

আগামী ৭২ ঘণ্টায় দেশের সব নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেতে পারে বলে জানা গেছে। ছবি: সংগৃহীত

শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরসমূহের জন্য আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট, টাঙ্গাইল, রাজশাহী, বগুড়া, পাবনা, ঢাকা, ফরিদপুর,মাদারীপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজার অঞ্চলসমূহের ওপর দিয়ে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে।

এসব এলাকার নদীবন্দরসমূহকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

আজকের পত্রিকা/সিফাত