লন্ডনের বৈশাখী মেলার দৃশ্য। ছবি : সংগৃহীত

গত ৩০ শে জুন পুর্ব লন্ডনের ওয়েভারস ফিল্ডে, সারাদিনব্যপী বর্নাঢ্য এক বৈশাখী মেলার আয়োজন করা হয়। সকাল ১১ টায়, নানা ধরনের দেশীয় উপকরণ, নাচ আর গানে বর্ণালী শোভাযাত্রার মাধ্যমে শুরু হয় এই বৈশাখী মেলা। লন্ডনের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন এই মেলার শোভাযাত্রাসহ বিভিন্ন আয়োজনে আবহমান বাংলাকে তুলে ধরে লন্ডনের তৃতীয় বৃহৎ এই জন সমাগমে।

বৈশাখী মেলার প্রধান আয়োজক টাওয়ার হ্যামলেট কাউন্সিল। নানান ধরনের খাবার , নাগরদোলা, বাহারী শাড়ির সাথে বাংলাদেশি গল্প-কবিতা ঐতিহ্যকে তুলে ধরতে মূল মঞ্চের পাশে ছিল কবিতা কর্ণার।

অন্যাণ্য সংগঠনের পাশাপাশি ব্রিটিশ বাংলাদেশি পোয়েট্রি কালেক্টিভ কবিতা ও সাহিত্যকে কেন্দ্র করে সারাদিনব্যাপী নানা আয়োজন তুলে ধরেন।

বিবিপিসি, মূলত ইংলিশে লিখালেখি করা ব্রিটিশ বাংলাদেশি কবিদের উদ্দেশ্যে তৈরি করা একটি সংগঠন। পাশাপাশি বাংলায় লেখা ব্রিটিশ বাংলাদেশি কবিদের কবিতাগুলো ইংরেজি অনুবাদের মাধ্যমে অন্য ভাষাভাষি দের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়া এই সংগঠনের আরেকটি কাজ।

বৈশাখী মেলায়, বিবিপিসি দিনব্যাপী আয়োজন তিনটি পর্বে বিভক্ত ছিল। এ আয়োজনে উপস্থাপিকা ফারাহ নাজের উপস্থাপনায়, ১ম পর্বে ব্রিটিশ কবিতা নিয়ে উপস্থিত ছিলেন কবি সাইমন ইতার।

দ্বিতীয় পর্বে, শেক্সপীয়ারের অনুবাদের উপরে আলোচনা করেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও সাহিত্যিক ডঃ সেলিম জাহান এবং মনিষা কায়েস।

তৃতীয় ও সমাপনী পর্বে, স্বরচিত কবিতা তুলে ধরেন কবি লিপি হালদার, তানিয়া জাহান, সৈয়দা তাসমিয়া তাহিয়া। কবি ফারাহ নাজের কবিতা আবৃত্তি করেন রিভু এবং কবি শামীম আজাদের কইন্যা কিচ্ছা কবিতার গানের রুপ নিয়ে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ থেকে আগত কণ্ঠশিল্পী লাভলী দেব।

লন্ডনের বৈশাখী মেলার দৃশ্য। ছবি : সংগৃহীত

মিউজিকে জহুরুল ইসলাম রাসেল, ওয়াহিদুজ্জামান উপল এবং সাদেক আহমেদ চৌধুরী।

বিগত ৪টি বছর ব্রিটিশ বাংলাদেশি পোয়েট্রি কালেক্টিভ লন্ডনের বৈশাখী মেলায় দিনব্যাপী তাদের নানা আয়োজনে কবিতা ও সাহিত্যকে তুলে ধরছেন, এই ধারা অব্যাহত রাখায়, টাওয়ার হ্যামলেট কাউন্সিল সহ অন্যান্যদের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে আয়োজনের পরিসমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।