লক্ষ্মীপুরে শিক্ষকদের মানববন্ধন।

প্রধান শিক্ষকদের সঙ্গে সহকারী শিক্ষকদের নায্যতার ভিত্তিতে বেতন বৈষম্য নিরসন ও ১১ তম গ্রেড নির্ধারণের দাবিতে লক্ষ্মীপুরে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকরা। এতে প্রায় ৫ শতাধিক সহকারী শিক্ষক-শিক্ষিকা অংশগ্রহণ করেন।

দাবি নয়, অধিকার, ১১তম গ্রেডই দরকার এই স্লোগানকে সামনে রেখে ১৪ মার্চ বৃহস্পতিবার বিকেল ৪ টার দিকে লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করেন শিক্ষকরা। পরে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতি (রেজি: নং- ১২০৬৮) জেলা শাখার আয়োজনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, সংগঠনের আহবায়ক নুর নবী, যুগ্ন আহবায়ক ফিরোজ আলম, আলতাফ হোসেন, মমিন উল্যাহ, শিক্ষক আব্দুল মজিদ, আবু বক্কর ছিদ্দিক বাবু, আনোয়ার হোসেন ভূঁইয়া প্রমুখ।

স্মারকলিপি ও মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকরা বেতন বৈষম্যের শিকার। বেতন বৈষম্য নিরসনে শিক্ষকরা কয়েক বছর ধরে দাবি জানিয়ে আসছেন। ২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষকদের বেতন ও পদমর্যাদা বৃদ্দির ঘোষনা দেন। ১১তম গ্রেডে বেতন হবে শিক্ষকদের মধ্যে আশা জেগে ছিল। কিন্তু আজও তা বাস্তবায়ন হয়নি।

আওয়ামী লীগ সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার, নির্বাচনের পূর্বে প্রদত্ত ভয়েস কলের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন ও ২০১৪ সালের ৯ মার্চ থেকে শতভাগ পদোন্নতি সহ সহকারী শিক্ষকদের প্রধান শিক্ষকদের পরের গ্রেড অর্থাৎ ১১ তম গ্রেডে বেতন নির্ধারণ করে বেতন বৈষম্য নিরসন করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন এবং সহকারী প্রধান শিক্ষকের পদ সৃষ্টির সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি জানান শিক্ষকরা।

সোহেল রানা/লক্ষ্মীপুর