পার্চিং উৎসব

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে সকল ব্লকে একযোগে পার্চিং উৎসব পালিত হয়েছে। ১১ ফেব্রুয়ারি সোমবার সকালে উপজেলার প্রতিটি ব্লকে এ উৎসব পালন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন অফিসার শাহাদৎ হোসেন ও দিপু রায়, উপসহকারি কৃষি কর্মকর্তা মাহিসরোয়ার মাহমুদ সুমন, জিয়াউর রহমান, তোফায়েল আহমেদ, জিল্লুর রহমান, আফসার আলী ও কৃষকগণসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

প্রসঙ্গত, উপস্থিত সকল কৃষককে পার্চিং সম্পর্কে ধারনা দেওয়া হয়। পার্চিং করলে ফসল উৎপাদনে কিটনাশক ব্যবহার ও উৎপাদন খরচ কমবে, পরিবেশ দুষণ হ্রাস পাবে, মানব স্বাস্থ্যের ঝুকি কমবে ও খাদ্য নিরাপদ নিশ্চিত করবে ইত্যাদি বিষয়ে সকলকে অবহিত করা হয়। এছাড়াও কৃষি ফসল উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিভিন্ন বিষয়ের উপরও আলোচনা করা হয়। এই আলোচনা ও উপসহকারি কৃষি কর্মকর্তাদের পরামর্শ কাজে লাগালে এলাকার কৃষকগণ এক পাশে অর্থ স্্রাশ্রয় হবে ও অপর দিকে বিভিন্ন জাতের ফলনও বৃদ্ধি পাবে।

পর্যায়ক্রমে উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে ৫৪টি ওয়ার্ডে এ পার্চিং উৎসব পালন করা হবে। পার্চিং বিষয়ে কৃষকদের কোন ধারনা না থাকলেও ইতিমধ্যে উপজেলার কৃষি অধিদপ্তরের উপসহকারি কৃষি কর্মকর্তাদের আপ্রান চেষ্টায় তারা পার্চিং ব্যবহার শুরু করেছেন। তারা নিরলসভাবে মাঠে ময়দানে কাজ করে যাচ্ছেন। সার্বক্ষণিক উপজেলার সকল ব্লকের কৃষকদের পরামর্শ দিয়ে আসছেন। যোগাযোগ রক্ষা করে আসছেন উপজেলার উপসহকারি কৃষি কর্মকর্তা বৃন্দ।

মাসুদ পারভেজ/ কুড়িগ্রাম