কুড়িগ্রামের রৌমারীতে অবৈধ ট্রলির ধাক্কায় হাসান মিয়া (২৫) নামে এক ড্রাইভারের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন আরও ৫ জন।

আশপাশের লোকজন আহতদের উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে ভর্তি করে। তাদের মধ্যে নাজমুলের অবস্থা গুরুতর হওয়ায়  রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

২৮ জানুয়ারী (মঙ্গলবার) দুপুর ১টার দিকে রৌমারী-ঢাকা মহাসড়কে যাদুরচর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত হাসান উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়নের দিঘলাপাড়া গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে হাসান ও নাজমুল নামের দু’জন অবৈধ ট্রলির ড্রাইভার ব্রহ্মপুত্র নদ থেকে বালু ভর্তি করে কর্তিমারী বাজারের দিকে যাচ্ছিলেন।

এসময় প্রতিযোগীতা করে নাজমুল নামে ড্রাইভার সড়ক পার হওয়ার সময় হাসানের ট্রলির পিছনে ধাক্কা দিলে দুইটি ট্রলি সড়কের নিচে আবু সাঈদের থাকার ঘরের ওপরে উল্টে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই হাসান মিয়ার মৃত্যু হয়।

গুরুতর আহত হয় নাজমুল (২৫), শাহিন,(২০),শাহিন (২৫), সুমন (১২)।

স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে ভর্তি করেন। ট্রলির মালিক দিগলাপাড়া গ্রামের ইমান আলী বলে জানা গেছে।

কর্তব্যরত চিকিৎসক অনুপ কুমার হাসানকে মৃত্যু বলে ঘোষণা করেন। পরে স্বজনরা তরিঘরি করে হাসানের মরদেহ তার নিজ বাড়িতে নিয়ে যান।

এব্যাপারে রৌমারী থানার ওসি আবু মোহাম্মদ দিলওয়ার হাসান ইনাম বলেন, নিহত ও আহতদের পক্ষ থেকে কোন মামলা করবে না। লাশ তার স্বজনরা নিয়ে গেছে।

মাসুদ পারভেজ রুবেল