বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার ব‌লে‌ছেন, সকল রো‌হিঙ্গা‌দের স্বেচ্ছায়, নিরাপদ ও স্থায়ী প্রত্যাবর্তন চায় যুক্তরাষ্ট্র। এ জন্য তারা মিয়ানমা‌রের ওপর চাপ অব্যাহত রে‌খে‌ছেন। ‌

তি‌নি আরও ব‌লেন, ‘মিয়ানমা‌রের ওপর চাপ অব্যাহত রাখ‌তে আমরা ইতোম‌ধ্যে মিয়ানমা‌রের সেনা প্রধান সহ তা‌দের নিরাপত্তা বা‌হিনীর অ‌নেকের ওপর নি‌ষেধাজ্ঞা আ‌রোপ ক‌রে‌ছি।

শ‌নিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে রাষ্ট্রদূত মিলার কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উপ‌জেলার অষ্টমীর চর ইউ‌নিয়‌নের প্রত্যন্ত চরা ল‌ নটারকা‌ন্দি‌ গ্রা‌মের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ প‌রিবা‌রের মা‌ঝে ত্রাণ সহায়তা দি‌তে গি‌য়ে সাংবা‌দিক‌দের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা ব‌লেন।

রো‌হিঙ্গা ইস্যু‌তে বাংলা‌দে‌শের প্রধানমন্ত্রী‌কে ধন্যবাদ জা‌নি‌য়ে রাষ্ট্রদূত মিলার আরও ব‌লেন, ‘বাংলা‌দেশ মিয়ানমারের লা‌খো মানু‌ষের জন্য তার হৃদয় ও সীমান্ত খু‌লে দি‌য়ে‌ছে। রো‌হিঙ্গা‌দের জন্য যুক্তরা‌ষ্ট্রের পক্ষ থে‌কে বি‌ভিন্নভা‌বে সহায়তা অব্যাহত থাকবে।

এর আ‌গে জেলার চিলমারী উপ‌জেলার অষ্টমীর চর ইউ‌নিয়‌নের নটারকা‌ন্দি গ্রা‌মের বন্যায় ক্ষ‌তিগ্রস্থ চরবাসীদের অবস্থা পরিদর্শন করেন।

কুড়িগ্রা‌মে অবস্থানকা‌লে রাষ্ট্রদূত মিলার বন্যা প‌রি‌স্থি‌তি এবং যুক্তরা‌ষ্ট্রের সহায়তা কিভা‌বে বাংলা‌দেশ সরকা‌রের ত্রাণ প্র‌চেষ্টার প‌রিপূরক হি‌সে‌বে কাজ কর‌তে পা‌রে সে সম্পর্কে জান‌তে স্থানীয় সরকা‌রী কর্মকর্তা এবং এলাকাবাসীর সা‌থে সাক্ষাত করেন। প‌রে রাষ্ট্রদূত কুড়িগ্রাম জেলায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য যুক্তরাষ্ট্র সরকারের ১ লাখ ডলার ত্রাণ সহায়তার ঘোষনা দিয়ে ১২শ পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ ও গৃহস্থালী সামগ্রী বিতরণের উদ্বোধন করেন।

এই ১ লাখ ডলার জরুরী ত্রাণ সহায়তা প্রকল্পটি কেয়ার বাংলাদেশের সহযোগীতায় স্থানীয় উন্নয়ন সংস্থা সলিডারিটি বাসস্তবায়ন করবে। এ সহায়তা পাবে চিলমারী উপজেলার অষ্টমীর চর ও রমনা ইউনিয়ন এবং কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার পাঁচগাছী ইউনিয়নের ১২শ পরিবারের ৪ হাজার ৯শ মানুষ।

এ সময় অন্যা‌ন্যের ম‌ধ্যে আরও উপ‌স্থিত ছি‌লেন ইউএস এইড এর বাংলা‌দেশ মিশন ডি‌রেক্টর ডে‌রিক ব্রাউন, কেয়ার বাংলা‌দে‌শের কা‌ন্ট্রি ডিরেক্টর জিয়া চৌধুরী, কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন, চিলমারী উপ‌জেলা চেয়ারম্যান শওকত আলী সরকার বীর বিক্রম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ মো. শামসু‌জ্জোহা, স্থানীয় উন্নয়ন সংস্থা সলিডারিটির নির্বাহী পরিচালক হারুন-অর-রশিদ লাল প্রমুখ।