ছবি: সংগৃহীত

রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের পাশে থাকবে বেইজিং- মিয়ানমারের সেনাপ্রধান মিং অং হ্লেইংয়ের সঙ্গে বৈঠক শেষে এমনটাই আশ্বস্ত করেছেন দেশটিতে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত চেন হাই। রোহিঙ্গাদের গণহত্যাসহ আরও অনেক অভিযোগে চাপের মুখে রয়েছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী।

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বরাত দিয়ে স্থানীয় এক অনলাইন প্রতিবেদনে এ বৈঠকের খবর জানানো হয়। রোহিঙ্গা ইস্যুতে আন্তর্জাতিক চাপে মিয়ানমার কিছু মানুষকে ফিরিয়ে নিতে সম্মত হলেও ২৩ আগস্ট শুক্রবার বাংলাদেশ থেকে দ্বিতীয় দফায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে।

মিয়ানমারের সেনাপ্রধানের কার্যালয় থেকে দেয়া এক সংক্ষিপ্ত বিবৃতি অনুযায়ী চেন হাই এবং মিং অং হ্লেইংয়ের মধ্যে বৈঠকে আলোচিত বিষয় নিয়ে বলা হচ্ছে, চীনা প্রতিনিধি তিনটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন। বিষয় তিনটি হলো-

প্রথমত, রোহিঙ্গা এবং মানবাধিকার ইস্যুতে মিয়ানমারের ওপর ক্রমবর্ধমান আন্তর্জাতিক চাপ সহ্য করবে না বেইজিং।

দ্বিতীয়ত, সম্প্রতি দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ সান এবং মানডালায় অঞ্চলের শহর পিও ও লুইনে যে সহিংস হামলা হয়েছে তার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে তারা।

তৃতীয়ত, মিয়ানমারে শান্তি প্রক্রিয়া এবং শান্তি আলোচনা অব্যাহত রাখতে সম্ভাব্য পথ খুঁজতে সহায়তা করবে চীন।

২৩ আগস্ট বাংলাদেশে আশ্রয়প্রাপ্ত নিবন্ধিত ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গার মধ্যে সাড়ে তিন হাজার রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠানোর কথা ছিল। প্রস্তুতিও সম্পন্ন হয়েছিল কিন্তু রোহিঙ্গাদের অসম্মতিতে তা সম্ভব হয়নি। এর আগেও গত বছরের নভেম্বরে প্রথমবারের মতো রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন চেষ্টাও ব্যর্থ হয়।

আজকের পত্রিকা/সিফাত