ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ছবি: সংগৃহীত

একটি ধর্ষণ মামলার তদন্ত করছে লাস ভেগাস পুলিশ, যেখানে নাম জুড়ে যাচ্ছে ফুটবল বিশ্বের অনবদ্য নাম ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর। মামালার বাদী ক্যাথরিন মায়োরগার পোশাকে ডিএনএ খুঁজে পেয়েছে লাস ভেগাস পুলিশ। ধর্ষণের অভিযোগকারি মায়োরগার পোশাকে খুঁজে পাওয়া ডিএনএ’র সঙ্গে রোনালদোর ডিএনএ মিলিয়ে দেখতে চায় তারা।

মডেল ক্যাথরিন মায়োরগার অভিযোগ, ২০০৯ সালে লাস ভেগাসের এক হোটেলে তাকে ধর্ষণ করেছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। এরপর গত সেপ্টেম্বরে রোনালদোর বিরুদ্ধে মামলা করে বসেন তিনি।

মাদ্রিদ ছেড়ে জুভেন্টাসে যোগ দেওয়া রোনালদো বর্তমানে বসবাস করছেন তুরিনে। সেখানকার কর্তৃপক্ষের কাছে এই পরোয়ানা পাঠিয়েছে লাস ভেগাস পুলিশ। ইতালিয়ান পুলিশ এখন রোনালদোর ডিএনএ সংগ্রহ করে লাস ভেগাস পুলিশকে পাঠাবে।

পুলিশের ডিএনএ নমুনা চাওয়া প্রসঙ্গে রোনালদোর আইনজীবী পিটার এস, ক্রিস্টিয়ানসেন বলেন, ‘রোনালদো আগের মতো এখনো বলছেন, ২০০৯ সালে লাস ভেগাসে যা হয়েছিল সেটি আসলে পারস্পরিক সমঝোতার ভিত্তিতে। তাই ডিএনএ থাকার বিষয়টি মোটেও অবাক করার মতো কিছু নয়।’

আজকের পত্রিকা/সিফাত