সব রাশির মানুষই সম্পর্কের ক্ষেত্রে একে অন্যের উপযুক্ত নাও হতে পারে। আপনার সঙ্গীর সাংঘর্ষিক রাশি থাকলেই কি আপনি এখন সম্পর্ক ভেঙে ফেলবেন? ছবি: সংগৃহীত

আপনি কি সঙ্গীর সঙ্গে বারবার ঝামেলায় জড়িয়ে পড়ছেন? নক্ষত্রের নিয়ম অনুযায়ী হয়তো আপনাদের জুটি উপযুক্ত নয়। প্রত্যেক রাশির মানুষের কিছু আকর্ষণীয় গুণাগুণ থাকে। কিন্তু সব রাশির মানুষই সম্পর্কের ক্ষেত্রে একে অন্যের উপযুক্ত নাও হতে পারে। আপনার সঙ্গীর সাংঘর্ষিক রাশি থাকলেই কি আপনি এখন সম্পর্ক ভেঙে ফেলবেন?

না, এই লেখার উপর নির্ভর করে সেটি করা মোটেই উচিত হবে না। এটাকে শুধুমাত্র একটা সাবধান বাণী হিসেবে নেওয়া যেতে পারে। একে অপরের উপযুক্ত হওয়ার শর্ত হিসেবে কোনো কঠিন নিয়ম নেই। রোমান্টিক সামঞ্জস্যের লক্ষণগুলো অনেকটা ছদ্মবেশ ধরে থাকে। সত্যি বলতে, কোন মানুষটির সঙ্গে আপনার সম্পর্ক হয়ে যাবে তা আপনিও নিশ্চিতভাবে বলতে পারবেন না। জ্যোতিষবিদ্যা মূলত আপনাকে একটি সঠিক পথ দেখানোর জন্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আপনি যদি সঙ্গী খুঁজে থাকেন তাহলে মিলিয়ে নিতে পারেন দুজনের রাশিফলের সামঞ্জস্য আছে কিনা।

মকর রাশির জাতক জাতিকারা অনেকটা গম্ভীর ও অনুভূতিহীন হওয়ে থাকে। অপরদিকে ধনু রাশির মানুষ খুব বেশি পরিশ্রমী এবং দায়িত্ববান হয়ে থাকে, কিন্তু তারা সবসময় পৃথিবীটাকে নতুনভাবে আবিস্কার করতে চায়। মন, চিন্তা ও বুদ্ধিকে বিকশিত করতে চায়। তাই রুটিন মাফিক কর্মজীবন তাদেরকে সুখী করতে পারে না।

মেষ রাশির মানুষ সম্পর্কের ক্ষেত্রে অনেক বেশি আধিপত্য বিস্তার করতে চায়। তাই তাদের সঙ্গে কখনো বৃষ, কর্কট, কন্যা এবং মকর রাশির জাতক জাতিকাদের সঙ্গে সামঞ্জস্য হবার সম্ভাবনা নেই। মেষ রাশির ধারককে তাদের কাছে অধৈর্য এবং বেপরোয়া মনে হবে। তাহলে মেষ রাশির ধারকের কার সঙ্গে সম্পর্ক করা উচিত? সিংহ রাশির মানুষেরও একই রকম শক্তিশালী ব্যক্তিত্ব রয়েছে। তাই সিংহ রাশিই মেষের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত।

আবার বৃষ রাশির ধারকের সঙ্গে মীন রাশির সামঞ্জস্য বেশি। এরা উভয়েই রাশি চক্রের সবচেয়ে রোমান্টিক রাশি। মীন রাশির মানুষ একটা আলাদা কল্পনার জগৎ নিয়ে বাঁচতে চায়। সেই জগৎটাকে বৃষ রাশি সহজেই স্বীকৃতি দিতে পারে।

মিথুন রাশির মানুষ অ্যাডভেঞ্চার বেশি পছন্দ করে। মেষ, কর্কট, কন্যা কিংবা মকর রাশির সবাই এই বৈশিষ্ট্যকে বেপোরয়া হিসেবে দেখে। কিন্তু ধনু রাশির ধারকের কাছে এটা প্রশংসিত। তাই মিথুন রাশির যথাযোগ্য ম্যাচ হচ্ছে ধনু রাশি।

মকর রাশির মানুষ নিজের সুবিধা ছাড়া কোনো কাজ করতে ইচ্ছুক নয়। মকর রাশিকে আবেগ ও ভালোবাসা দিয়ে বন্ধনে বাঁধার শক্তি আছে কর্কট রাশির ধারকের। কর্কট তুলনামূলক অনেক বেশি আবেগী হওয়ায় এরা পরস্পরের জন্যে শ্রেয়।

অনেকে বলে বৃশ্চিক রাশির মানুষকে সবাই ভালোবাসে। এরা শারীরিকভাবে খুব কাঙ্ক্ষিত হয়ে থাকে। কিন্তু বৃশ্চিকের সাথে সামঞ্জস্য হয় কন্যা রাশির ধারকের সঙ্গে। যেহেতু এরা উভয়েই খুব যৌক্তিক ও স্পষ্ট মানসিকতা রাখে।

তুলা রাশির জাতক জাতিকারা সবসময় যা সঠিক তাই করতে চায়। এছাড়া এদেরকে সম্পর্কের ক্ষেত্রে সহজেই বিশ্বাস করা যায়। একইসাথে এরা খুব বুদ্ধিমান হয়ে থাকে। অন্যদিকে কুম্ভ রাশির ধারকের মধ্যে শক্তিশালী ব্যক্তিত্ব ও আত্মরুচি থাকার পাশাপাশি ভালোবাসা নিয়ে ডুবে থাকার প্রবণতা রয়েছে। উভয়েই প্রাণ উজাড় করে ভালোবাসতে পারে। তাই এরাই পরস্পরের সঙ্গী হওয়ার যোগ্য।

 

আজকের পত্রিকা/সিফাত