ভালোবাসা দিবস নিয়ে কোন রাশির মানুষ কী ভাবে। ছবি: সংগৃহীত

ভ্যালেন্টাইন ডে এক অন্যরকম ছুটির দিন। অন্যান্য ছুটির দিনগুলি থেকে এটা একদম আলাদা। বেশিরভাগ ছুটির দিন আপনি পছন্দ করবেন নাহয় অপছন্দ করবেন। কিন্তু ভালোবাসা দিবসে আপনার মধ্যে এক অদ্ভুত মানসিক চাপ কাজ করবে। আপনি যদি একা থাকেন, তবে আপনার মধ্যে ভালোবাসা দিবস নিয়ে বিভিন্ন কল্পনা, আগ্রহ ও উত্তেজনা কাজ করতেই পারে যা আপনি গোপন রাখতে চাইবেন। আবার যাদের প্রিয়জন রয়েছে তারা ভালোবাসা দিবসকে একটু ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে বিচার করে। অর্থাৎ, এই দিবস নিয়ে একেকজন মানুষের মধ্যে একেকরকম অনুভূতি কাজ করে। অনুভূতির এই বৈচিত্রকে জেনে নেয়ার সহজ মাধ্যম হচ্ছে রাশি। চলুন তাহলে রাশি দেখে জেনে নিই, ভালোবাসা দিবস সম্পর্কে কে কী ভাবে কিংবা এই দিনটাকে কে কীভাবে উদযাপন করতে চায়।

মেষ রাশি( মার্চ ২১- এপ্রিল ১৯)

মেষ রাশির মানুষ অ্যাডভেঞ্চার খুব ভালোবাসে। ভ্যালেন্টাইন ডে তেও তারা বিভিন্ন দুঃসাহসিক কিছু করার মাধ্যমে সময়টাকে স্মরণীয় করতে চায়। তাই আপনার মেষ রাশির সঙ্গীর জন্য কোনো গতানুগতিক ভি-ডে কার্ডস, হার্টশেপড চকোলেট বক্স কিনে থাকলে তা বাসায় রেখে দিন। এবং নতুন কোনো প্ল্যান করুন।

বৃষ রাশি (এপ্রিল ২০- মে ২০)

এই রাশির জাতকদের ভ্যালেন্টাইন ডে নিয়ে তেমন বড় করে ভাবনা কাজ করে না। রোমান্টিক সময় যাপন করার জন্য খুব ছোটোখাটো পরিকল্পনাই যথেষ্ট। অল্পতেই খুশি হওয়ার মানসিকতা এদের রয়েছে।

মিথুন রাশি (মে ২১- জুন ২০)

মিথুন রাশির জাতকদের সর্বশ্রেষ্ঠ বৈশিষ্ট হচ্ছে অভিযোজন ক্ষমতা। তাই ভালোবাসা দিবসে তাদের নিয়ে বড় কোনো আয়োজন করা হোক কিংবা না হোক তা নিয়ে তাদের খুব একটা যায় আসে না।

কর্কট রাশি (জুন ২১- জুলাই ২২)

কর্কট রাশির ধারক খুব ইমোশনাল হয়ে থাকে। ভালোবাসা নিয়ে এদের মধ্যে তীব্র ফ্যান্টাসি ও উন্মাদনা কাজ করে। এই দিনে তারা গতানুগতিক উপহার চায় এবং প্রিয়জনের সঙ্গে সারাদিন রোমান্টিক সময় যাপন করার প্রবণতা থাকে।

সিংহ রাশি ( জুলাই ২৩- আগস্ট ২২)

সিংহ রাশির সকলেই খুব বিশ্বস্ত এবং প্রেমময় চরিত্রের অধিকারী। তারা ভ্যালেন্টাইন ডে একটা সুযোগ হিসেবে নেয়, যখন তারা তাদের মনের কথাগুলো খুলে বলতে পারে। তারা তাদের সঙ্গীর জন্য বিশেষ কোনো উপহার এবং রোমান্টিক কিছু পরিকল্পনা করতে চায়।

কন্যা রাশি ( আগস্ট ২৩- সেপ্টেম্বর ২২)

কন্যা রাশির সবাই খুব বাস্তবিক চিন্তাধারা রাখে। এই দিন ছুটি পেলে তারা ঘরে বসেই প্রিয়জনের সঙ্গে সময় কাটাতে চায়। ফুল, উপহার ইত্যাদি কিনে অপচয় করার মানসিকতা এদের মধ্যে নেই।

তুলা রাশি (সেপ্টেম্বর ২৩- অক্টোবর ২২)

ভালোবাসা দিবস নিয়ে তুলা রাশির মানুষের মধ্যে নানা জল্পনা কল্পনা কাজ করে। তারা এই দিনটিকে অনেক বেশি বিলাসবহুল ভাবে কাটাতে চায়। প্রিয় মানুষটির কাছে এদের প্রত্যাশাও অনেক বেশি থাকে।

বৃশ্চিক রাশি ( অক্টোবর ২৪- নভেম্বর ২১)

এই রাশির জাতক জাতিকাদের দিবসটি নিয়ে অনেক উত্তেজনা কাজ করে। তারা দিনটিকে অনেক দুঃসাহসিক কাজের মাধ্যমে পালন করতে চায়। প্রিয়জনের সঙ্গে পাহাড় কিংবা সমুদ্রে ভ্রমণ করার প্রবণতা তৈরি হয়।

ধনু রাশি (নভেম্বর ২২- ডিসেম্বর ২১)

ধনু রাশির সবাই খুব আশাবাদী মানুষ হয়। তাদের মধ্যে তীব্রভাবে ভালোবাসার অভিপ্রায় রয়েছে। তাই এরা ভালোবাসা দিবসে প্রিয়জনের প্রত্যাশা পূরণ করার যথাসম্ভব চেষ্টা করে।

মকর রাশি ( ডিসেম্বর ২২- জানুয়ারি ১৯)

এই দিনে মকর রাশির কেউ গতানুগতিক কোনো উপহার প্রিয়জনের কাছ থেকে প্রত্যাশা করে না। তারা নিজের মতো করে খুব নিরপেক্ষ ভাবে সময় কাটাতে চায়। তবে ভালোবেসে কেউ কোনো কিছু দিতে চাইলে প্রত্যাখান না করে এরা সম্মানের সঙ্গে তা গ্রহণ করে।

কুম্ভ রাশি ( জানুয়ারি ২০- ফেব্রুয়ারি ১৮)

বিষয়টা এমন নয় যে, কুম্ভ রাশির মানুষ এই দিনটাকে উপভোগ করে না, কিন্তু অতিরিক্ত চাহিদা, তীব্র রোমান্টিক সময় যাপন ইত্যাদি তাদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যে প্রকট নয়। তারা এই দিনে প্রিয় মানুষটির সঙ্গে নিরিবিলি একটু কথা বলতে চায়। বাকি সময় বইপত্র পড়ে কাটিয়ে দেয়।

মীন রাশি (ফেব্রুয়ারি ১৯- মার্চ ২০)

খুব নিঃস্বার্থ এবং নিস্পাপ একটা হৃদয় রয়েছে মীন রাশির জাতক জাতিকাদের। তারা ভ্যালেন্টাইন ডে সবচেয়ে সুন্দর উপায়ে যাপন করতে চায়। এরা উপহার গ্রহণ করার চেয়ে উপহার দিতে বেশি আগ্রহ দেখায়। প্রিয় মানুষটিকে কোনো উপহার দিয়ে সন্তুষ্ট করতে পারলে তীব্র আত্মতৃপ্তিতে ভুগে।