রাবিতে জুয়া খেলার তাস

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রমানের নেতৃত্বে ২ সেপ্টেম্বর সোমবার মধ্য রাতে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারি ক্লাব ভবনে অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদের আটক করেছে। তবে আটককৃতদের দাবি জুয়া নয় বরং সারাদিনের ক্লান্তি দূর করতে তাস খেলছিলেন তারা।

প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় শেখ কামাল স্টেডিয়াম সংলগ্ন কর্মচারি ক্লাবে দুটি কক্ষে ৩৫-৪০জন লোক কয়েকটি গ্রুপে ভাগ হয়ে জুয়া খেলছিলেন এমন খবরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে সেখান থেকে তাদের আটক করে।

অভিযানে দুই কক্ষ থেকে বিপুল পরিমাণ তাস উদ্ধার করা হয়। পরে ঘটনাস্থলে উপস্থিত কর্মচারি সমিতির সভাপতি ইমান হাসান পুলিশের সঙ্গে কথা বলেন। আটককৃতদের মধ্য থেকে ১৪ জনকে আটকে রেখে বাকিদের ছেড়ে দেয় হয়েছে।

কর্মচারি ইউনিয়নের সভাপতি ইমান হাসান জুয়া খেলার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, এখানে খুবই অল্পপরিমাণের বাজিতে জুয়া খেলা হয়। কখনো হয়তো পেপসি বা চায়ের বাজিতে খেলা হয়।

এছাড়াও ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য ক্লাবগুলোতে আরও বড় বাজিতে জুয়া খেলা হয় সেখানে পুলিশ বা প্রক্টর অভিযান পরিচালনা করতে পারে না। আমরা আগামীকাল ইউনিয়নের বৈঠক ডেকেছি। বৈঠক শেষে আমাদের কর্মসূচি ঘোষণা করবো।

জানতে চাইলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, জুয়ার আসর থেকে ৩৫-৪০জনেক আটক করা হয়। পরে প্রক্টরের সঙ্গে কথা বলে বেশ কয়েকজনকে ছেড়ে দিয়েছি। ১৪ জনকে থানা নেয়া হয়েছে। তাদেরকেও মুছলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হবে।

-আজকের পত্রিকা/রাবি