মিরপুরের রূপনগরের পুড়ে যাওয়া বস্তি পরিদর্শনে যান বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলের নেতারা। ছবি : সংগৃহীত

বছরের শুরু থেকে একের পর এক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে যাচ্ছে রাজধানী ঢাকায়, কেন এমন হচ্ছে? এমন প্রশ্ন রেখে নিরপেক্ষ কমিটির মাধ্যমে তা তদন্তের দাবি জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

১৭ আগস্ট শনিবার দুপুরে মিরপুরের রূপনগর থানার পেছনে চলন্তিকা মোড়ে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত বস্তি পরিদর্শন করতে গিয়ে বিএনপির মহাসচিব এই দাবি করেন।

১৬ আগস্ট শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে মিরপুরের এই বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ২০টি ইউনিট প্রায় তিন ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। কিন্তু এর মধ্যে পুড়ে ছাই হয়ে যায় বস্তির হাজার হাজার ঘর। এখানকার বাসিন্দারা নিঃস্ব হয়ে যায়।

এটি নাশকতা নাকি দুর্ঘটনা এ নিয়ে বস্তির বাসিন্দাদের কেউ প্রকাশ্যে কোনো কথা বলছে না। তবে খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করা অনেকেই আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছে, তারা জানে না আবার সেই বস্তিতে থাকতে পারবে কি না। যদিও পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, নাশকতার কোনো অভিযোগ তাদের কাছে নেই।

১৭ আগস্ট শনিবার দুপুরের দিকে সেই বস্তি পরিদর্শনে যান বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলের নেতারা। তারা বস্তিটি ঘুরে দেখেন এবং সেখানে ক্ষতিগ্রস্ত বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলেন। এ সময় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের পাশে থাকার আশ্বাসও দেন বিএনপির নেতারা।

পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে বিএনপির মহাসচিব বলেন, রাজধানী ঢাকায় কেন বারবার বস্তিতে আগুন লাগছে, তা তদন্ত করে দেখা উচিত। কোনো ব্যক্তি বিশেষের দ্বারা হলে তার শাস্তি হওয়া প্রয়োজন।

এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, বস্তিগুলোতে যে বারবার আগুন লাগে তার পেছনে কোনো না কোনো কারণ থাকে। আমি বলছি না কোনো উদ্দেশে বস্তিতে আগুন লাগানো হয়েছে। এটা মানুষের মধ্যে সন্দেহের তৈরি করে। তাই এ ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত হওয়া উচিত।

‘রাজধানীতে কেন বারবার আগুন লাগছে? এই মিরপুরে কালশীতে ভয়াবহ আগ্নিকাণ্ড হলো। মানুষ মরল। দগ্ধ হলো। এর আগেও আগুন লেগেছে। এগুলোর সঠিক কারণ বের করা দরকার। আমরা কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করব, বস্তিবসী মানুষের যে ক্ষতি হয়েছে তার ক্ষতিপূরণ দেওয়ার জন্য।

বিএনপির মহাসচিব আরো বলেন, গতকালের ঘটনায় তিন হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। নিঃস্ব হয়েছে। সবার বাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। সবার প্রতি আহ্বান, তাদের পাশে এসে দাঁড়ান। আর এই সরকারের কাছে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের ক্ষতিপূরণের দাবি জানাচ্ছি।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা দলের পক্ষ থেকে, চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পক্ষ থেকে এ ঘটনায় গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। আমরা আমাদের সামর্থ্য অনুসারে আপনাদের পাশে দাঁড়াবো।

আজকের পত্রিকা/কেএফ