রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়।

‘দীর্ঘ ২৮ বছর পর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ (রাকসু) নির্বাচনের গুঞ্জন উঠেছে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সকল রাজনৈতিক সংগঠনগুলো নিজ জায়গা থেকে প্রস্তুতি নিচ্ছে। এমতাবস্থায় রাকসু নির্বাচনে কালক্ষেপণের বিষয়টি স্পষ্ট হয়েছে। আর এই কালক্ষেপণের জন্য প্রশাসনের দায় রয়েছে।

প্রশাসন যদি নির্বাচনে কালক্ষেপণের চেষ্টা করে তাহলে আমরা শিক্ষার্থীদের নিয়ে আন্দোলনে নামবো’ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু মঙ্গলবার দুপুরে এমনটি বলেই অভিযোগ করছিলেন।

অন্যদিকে, নির্বাচন নিয়ে কালক্ষেপণের বিষয়টি অস্বীকার করে রাকসু সংলাপ কমিটির সভাপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘প্রায় সবগুলো ছাত্র সংগঠনের সাথেই আমরা সংলাপ শেষ করেছি। এরপর সংলাপে উঠে আসা সকল দাবিগুলো নিয়ে আমরা বসবো এবং যত দ্রুত সম্ভব আমরা রাকসু নির্বাচন করবো।’

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আরো বলেন, আমরা সব সময় শিক্ষার্থী বান্ধব হয়ে কাজ করেছি। অন্যান্য ছাত্র সংগঠনগুলো তাদের নিজ জায়গা থেকে শিক্ষার্থীদের নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়াও নির্বাচনকে ঘিরে বিশ্ববিদ্যালয়ে সকল ছাত্র সংগঠন প্রচার-প্রচারণা করেই যাচ্ছে।

এমতাবস্থায় নির্বাচনে কালক্ষেপণের বিষয়টি সম্পূর্ণ অযৌক্তিক।

জাহাঙ্গীর আলম/রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়