নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগিয়েছে যাত্রীবাহি বিআরটিসি বাসের চালক। শনিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে সাতক্ষীরা সদরের আলিপুর দিঘীর পাড় এলাকায় এ দূর্ঘটনা ঘটে। এতে বাসে থাকা ৫০ যাত্রীর সকলেই কমবেশী আহত হয়েছে।

১০ জনকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদের মধ্যে দুই জনের অবস্থা অশংকাজনক। তাৎক্ষণিক আহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি।

বাসে থাকা এক যাত্রীর স্বজন লাভলুর রহমান জানান, খুলনার শিরোমনি থেকে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার মুন্সিগজ্ঞের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল বিআরটিসির যাত্রীবাহি বাসটি। আমার স্ত্রী ও সন্তান এই বাসে করে শ্যামনগর ফিরছিল। সাতক্ষীরার ত্রিশ মাইল এলাকা থেকে বাসটির একটি চাকা পামচার হয়ে যায়। বৃষ্টির মধ্যে গাড়ি চালাচ্ছিলেন ড্রাইভার। গাড়ির সামনের গ্লাস কুয়াশাচ্ছন্ন হয়ে যায়। কিছুই দেখা যাচ্ছিল না। যাত্রীরা বাসটিকে থামিয়ে চাকা মেরামত ও গ্লাস পরিষ্কার কারার কথা জানালেও চালক কর্ণপাত করেননি।

তিনি জানান, এভাবেই গাড়ি চালিয়ে সাতক্ষীরা বিআরটিসির কাউন্টারে আসে। এরপর সেখান থেকে শ্যামনগরের মুন্সিগজ্ঞ এলাকার উদ্দেশ্যে পুনরায় রওনা দেয়। রওনা হয়েই কয়েক কিলোমিটার দূর আলীপুর পর্যন্ত পর্যন্ত পৌছালে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি গাছের সঙ্গে মেরে দেয় চালক। পাশেই ছিল পুকুর। গাছটি না থাকলে বাসটি পুকুরের মধ্যে পড়তো বাসটি। অল্পের জন্য ৫০ যাত্রীর জীবন এ যাত্রায় রক্ষা পেয়েছে। তবে সকলেই কমবেশী আহত হয়েছে এ দূর্ঘটনায়।

সাতক্ষীরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ঘটনাস্থল থেকে আহতদের দ্রুত উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদের মধ্যে দুইজনের অবস্থা আশংকাজনক। ফায়ার সার্ভিস গাড়িটি উদ্ধারে কাজ করছে।

বৈশাখী/সাতক্ষীরা