রংপুরে পরিবহন ধর্মঘট।

রংপুর বিভাগের ৮ জেলায় অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট শুরু করেছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন। জালাল উদ্দিন নামে এক বাস চালককে চট্টগ্রামে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পরিচয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে রংপুর বিভাগে এ পরিবহন ধর্মঘট আহ্বান করা হয়েছে।

পরিবহন ধর্মঘটের কারণে ঢাকাসহ দুর পাল্লার বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে করে যাত্রীরা পড়েছেন চরম দূর্ভোগে। দুর পাল্লার যানবাহন চলাচল না করলেও আন্তঃজেলা রুটে কিছু বাস চলাচল করছে।

বৃহস্পতিবার সকালে রংপুর ঢাকা বাসস্ট্যান্ড সরেজমিনে দেখা গেছে, ঢাকাগামী সকল বাস সারি সারি দাঁড়িয়ে রয়েছে স্ট্যান্ডে। বন্ধ রয়েছে সবগুলো বাসের কাউন্টার। ঢাকাগামী অনেক যাত্রীদের বাসস্ট্যান্ডে এসে ঘুরে যেতেও দেখা গেছে। এদিকে দুপুরে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন রংপুর বিভাগীয় কমিটি ও জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগে জালালের হত্যাকারীদের শাস্তির দাবীতে নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল ও স্বারকলিপি প্রদান কর্মসূচী পালন করা হয়েছে।

বিক্ষোভ মিছিলটি নগরীর শাপলা চত্ত্বর থেকে বের হয়ে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। মিছিলে নেতৃত্ব দেন জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মুকুল মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক এম এ মজিদ।

জেলা প্রশাসক কার্যালয় ঘেরাও করে বিক্ষোভ করে শ্রমিকরা। এ সময় আগামী ১ মে’র মধ্যে ঘটনার সুষ্ঠু বিচার না হলে রংপুর থেকে কঠোর কর্মসূচী দেয়ার ঘোষনা দেন তারা। এরপর বিভাগীয় কমিশনার, ডিআইজি রংপুর রেঞ্জ ও জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দেয় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন ও জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দরা।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি আকতার হোসেন বাদল জানান, গত ২২ এপ্রিল দিনাজপুরের এক নিরীহ শ্রমিক শ্যামলী পরিবহনের চালক জালাল উদ্দিনকে ডিবি পুলিশ ধরে নিয়ে গিয়ে নির্মম নির্যাতন করে মেরে ফেলেছে। তার উপর অমানবিক নির্যাতন করা হয়েছে।

যেহেতু ওই শ্রমিকের বাড়ি রংপুর বিভাগে তাই দিনাজপুরের বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা টার্মিনালে বিক্ষোভ করে সকল বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়।

প্রথমে রংপুর বিভাগের দিনাজপুর, পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও ও নীলফামারী জেলাতে পরিবহন ধর্মঘট ডাকা হলেও পরবর্তীতে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিভাগের ৮ জেলাতেই বাস চলাচল বন্ধ করা হয়েছে।

আমরা সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি অবিলম্বে হত্যাকারী ডিবি পুলিশের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। সেই সাথে তার পরিবারকে পূর্ণবাসন করে ক্ষতিপূরণ দেয়া হোক।

রংপুর বিভাগের পাশাপাশি রাজশাহী, সিলেট বিভাগের নেতারাও বৈঠকে বসেছেন। নেতাদের সিদ্ধান্তে সব বিভাগেই বাস চলাচল বন্ধ ঘোষনা করা হবে।

আজকের পত্রিকা/এহসানুল হক সুমন, রংপুর/এমএআরএস