পাফ পেস্ট্রি বা বাটার দেওয়া কোনো কিছু মাইক্রোওভেনে গরম করবেন না। ছবি : সংগৃহীত

সাধারণত মাইক্রোওয়েভ ওভেন বলতেই আমরা বুঝি যেকোনো খাবার সহজেই গরম করে খাওয়া যাবে। বিশেষত যারা কর্মজীবী তাদের এতে খুবই সুবিধা হয়। কিন্তু অনেকেই হয়তো জানেন না মাইক্রোওভেনে খাবার গরম করলে যেমন খাদ্যগুণ নষ্ট হয়, তেমনই খাবারও খারাপ হয়ে যায়। চলুন জেনে নিই, কোন কোন খাবার মাইক্রোওভেনে গরম করা ঠিক নয়।

পাফ পেস্ট্রি

পাফ পেস্ট্রি বা বাটার দেওয়া কোনো কিছু মাইক্রোওভেনে গরম করবেন না। এতে খাবারের স্বাদ চলে যায়।

পিৎজা

পিৎজা আমরা গরম করে খাই। কিন্তু পিৎজা তৈরি হওয়ার পর আবার গরম করলে পিৎজা ব্রেড শক্ত হয়ে যায়। তাই গরম করে নয়, কষ্ট করে ঠাণ্ডা পিৎজাই খান।

বার্গার

দরকার হলে টোস্টারে গরম করুন কিন্তু মাইক্রোওভেনে নয়। কারণ, পাউরুটি তৈরির সময় এটি পোড়ানো হয়। এজন্য পুনরায় গরম না করাই ভালো।

ডিম দেওয়া কোনো খাবার

ডিম মেশানো নয়, কিন্তু ভেতরে ডিম দেওয়া কোনো খাবার থাকলে তা মাইক্রোওভেনে গরম করবেন না। কারণ, মাইক্রোওভেনে ডিম দিলে তা ফেটে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

দুগ্ধজাত খাবার

দুধ থেকে তৈরি খাবার মাইক্রোওভেনে গরম না করাই ভালো। এতে খাদ্যগুণ নষ্ট হয়। অনেক সময় খাবারও নষ্ট হয়ে যায়।

নরম খাদ্য

খুব তুলতুলে কেক, বা এরকম হালকা কোনো খাবার একেবারেই গরম করা যাবে না।

বেবিফুড

অনেকেই বাচ্চার খাবার মাইক্রোওভেনে গরম করে খাওয়ান। তবে এই ভুল কখনই করবেন না। এতে খাবারের গুণাগুণ নষ্ট হয়ে বাচ্চার ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

আজকের পত্রিকা/কেএইচআর/এআরকে