গ্লুটেন অ্যালার্জির ফলে ত্বকে র্যাদশ দেখা দিতে পারে। ছবি: সংগৃহীত

চেহারার সৌন্দর্য ধরে রাখতে কে না চায়? কিন্তু এই সৌন্দর্যের জন্য চুল ও ত্বকের যত্ন নেওয়া অত্যন্ত জরুরি। আমরা অনেকেই মনে করি, বর্তমানের মাত্রাতিরিক্ত দূষণের ফলে চুল ও ত্বকের মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে। এ ধারণা সম্পূর্ণ ভুল নয়। তবে পরিবেশের দূষণ ছাড়াও আমাদের ত্বকের ক্ষতি করছে আমাদের দৈনন্দিন খাদ্য তালিকায় থাকা বেশ কিছু খাবার যেগুলি সম্পর্কে আমাদের অনেকেরই তেমন কোনও ধারণা নেই!

ফলে নিয়মিত ত্বক ও চুলের পরিচর্যার নানা আয়োজন থাকা সত্ত্বেও তার ক্ষতি হয়েই চলেছে। চলুন জেনে নিই, ত্বকের জন্যে ক্ষতিকর যেসব খাবার দৈনন্দিন খাদ্য তালিকা থেকে বাদ দেওয়া জরুরী।

চিনি

মাত্রাতিরিক্ত চিনি দেওয়া খাবার বা মিষ্টি খাবার শরীরের মেদ বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে ত্বক শুষ্ক করে তোলে। এর ফলে কপালে, চোখের কোনায় বলিরেখা দেখা দিতে পারে।

লবণ

অতিরিক্ত মাত্রায় লবণ খেলে মুখ ফোলা দেখাতে পারে, থুতনির নিচে মেদ বাড়তে পারে। ‘দ্য ন্যাশনাল হার্ট, লাং অ্যান্ড ব্লাড অ্যাসোসিয়েশন’-এর গবেষকদের মতে, প্রতিদিন ৫০০ মিলিগ্রামের বেশি লবণ খেলে ফুলে যেতে পারে চোখের কোল। ফলে মুখ ফোলা দেখাতে পারে।

দুগ্ধজাত খাবার

অতিমাত্রায় দুগ্ধজাত খাবার খেলে চোখ ফুলে উঠতে পারে, বাড়তে পারে থুতনির নিচে মেদ। এছাড়াও, ব্ল্যাকহেডসের সমস্যা বাড়তে পারে যা ত্বকের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

ময়দা জাতীয় খাবার 

গ্লুটেন সমৃদ্ধ খাবার-দাবার (ময়দা জাতীয় খাবার। যেমন, পাউরুটি) অতিরিক্ত মাত্রায় খেলে ত্বকের প্রকৃতি বদলে যেতে পারে। গালে, কপালে ব্রণ, ফুসকুড়ি দেখা দিতে পারে। গ্লুটেন অ্যালার্জির ফলে ত্বকে র‌্যাশ দেখা দিতে পারে।

অ্যালকোহল

মাত্রাতিরিক্ত অ্যালকোহল বা মদ্যপানের ফলে ত্বকে বলিরেখা দেখা দিতে পারে। চোখ আর মুখের ফোলা ভাব বেড়ে যেতে পারে। ডবল চিন বা থুতনির নিচে অতিরিক্ত মেদও জমতে পারে।

আজকের পত্রিকা/কেএইচআর/সিফাত