মুড সুইং ও ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য একটি খাদ্য তালিকা অনুসরণ করতে পারেন। ছবি: সংগৃহীত

পিরিয়ডের সময় প্রায়ই ক্লান্তি, মুড সুইং ও ব্যথার মতো পরিস্থিতির শিকার হতে হয়। অনেক সময় পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়ে পড়ে। ফলে পিরিয়ডের পুরো সময়টি একটি যুদ্ধের মতো লাগে। মুড সুইং ও ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য একটি খাদ্য তালিকা অনুসরণ করতে পারেন। কিন্তু এমন অনেক খাবার আছে, যা আপনার পিরিয়ডের ব্যথাকে আরও বাড়িয়ে দিতে পারে। জেনে নিন সেসব খাবারগুলো সম্পর্কে-

কফি

অত্যধিক কফি পান করার ফলে ভাস্কোনস্ট্রিকশন হতে পারে, যা রক্তবাহী পদার্থ সংকোচন করে ফেলে। ছবি: সংগৃহীত

আপনি যদি পিরিয়ডের ব্যাথা থেকে দূরে থাকতে চান, তাহলে ক্যাফেইন থেকে দূরে থাকুন। দিনে দিনে শুধুমাত্র এক কাপ কফি পান করতে পারেন। অত্যধিক কফি পান করার ফলে ভাস্কোনস্ট্রিকশন হতে পারে, যা রক্তবাহী পদার্থ সংকোচন করে ফেলে।

পরিমার্জিত চিনি

পিরিয়ডের সময় যদি আপনি আরও বেশি চিনি খান তাহলে আপনার ব্যথা আরও বাড়তে পারে। ছবি: সংগৃহীত

আপনার যখন পিরিয়ড হয়, তখন রক্তে চিনির পরিমান পরিবর্তন হতে থাকে। এই সময়ে যদি আপনি আরও বেশি চিনি খান, তাহলে আপনার ব্যথা আরও বাড়তে পারে। রক্তে চিনির পরিমান হুট করে বেড়ে যাবে, আবার হুট করে কমেও যেতে পারে।

দুগ্ধজাত পন্য

দুধ, পনির এবং আইসক্রিমের মত দুগ্ধজাত পণ্যগুলোতে অ্যারাকিডোডনিক অ্যাসিড থাকে। ছবি: সংগৃহীত

দুগ্ধজাত পন্য বেশি করে খাওয়া ঠিক হবে না। কারণ এটি আপনার ব্যথাকে আরও বাড়িয়ে দিতে পারে। দুধ, পনির এবং আইসক্রিমের মতো দুগ্ধজাত পণ্যগুলোতে অ্যারাকিডোডনিক অ্যাসিড (একটি ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিড) থাকে, যা প্রদাহ বৃদ্ধি করতে পারে এবং আপনার পিরিয়ডের ব্যথা ত্বরান্বিত করতে পারে।

চর্বিযুক্ত খাবার

চর্বিযুক্ত খাবার আপনার শরীরের প্রোস্টাগ্লান্ডিন সংখ্যা বৃদ্ধি এবং আপনার জরায়ু সংকোচন করতে পারে। ছবি: সংগৃহীত

চর্বিযুক্ত খাবার আপনার শরীরের প্রোস্টাগ্লান্ডিন সংখ্যা বৃদ্ধি এবং আপনার জরায়ু সংকোচন করতে পারে। জরায়ু সংকোচন হওয়ার ফলে ব্যথা হবে এবং আপনি অস্বস্তি বোধ করবেন। তাই চর্বিযুক্ত মাংস এই সময়ে এড়িয়ে চলা উচিত।

আজকের পত্রিকা/রিয়া/সিফাত