কাজী ফয়সাল
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

সম্রাট

বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনে ৬ মাসের কারাদণ্ড পাওয়া সদ্য বহিষ্কৃত যুবলীগ নেতা ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটের চিকিৎসায় সাত সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করেছে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউশন কর্তৃপক্ষ।

৮ অক্টোবর মঙ্গলবার বিকেল ৪ টায় সম্রাটের চিকিৎসার পরবর্তী ফলোআপ রিপোর্টের বিষয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান হাসপাতালের পরিচালক ডা. আফজালুর রহমান।

তিনি বলেন, সকাল থেকে সম্রাটের যেসব পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে সেগুলো রিপোর্ট পজেটিভ। তবে তিনি যেহেতু হৃদরোগে আক্রান্ত তাই আমরা এ ধরনের রোগীদের ২৪ ঘণ্টা ফলোআপে রাখি। সে হিসেবে বুধবার ৯ অক্টোবর তার বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এখনো তার শারীরিক সকালে অবস্থা স্থিতিশীল। শঙ্কার কোনো কারণ নেই।

তিনি আরো বলেন, তার চিকিৎসায় ইতোমধ্যে আমরা ৭ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করেছি। মেডিক্যাল বোর্ডের প্রধান হিসেবে আমি থাকছি। মেডিক্যাল বোর্ডের বাকি সদস্যরা হলেন প্রফেসর মীর জামাল উদ্দিন, অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর মহসিন আহমেদ, প্রফেসর নাসির উদ্দিন, প্রফেসর কাজী আবুল আজাদ, প্রফেসর আশরাফুল হক সিয়াম ও সার্জারি ডিপার্টমেন্টের প্রধান রাম পদ সরকার।

তিনি বলেন, যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটের অবস্থা স্থিতিশীল। তার সুচিকিৎসার জন্য সাত সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। বেশকিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে। ইমিডিয়েট (জরুরি) কিছু পরীক্ষার রিপোর্ট আমরা পেয়েছি, সেগুলোর রিপোর্ট ভালো। তবুও তাকে ২৪ ঘণ্টার জন্য অবজারভেশনে রাখতে হচ্ছে। কারণ যেকোনো হৃদরোগের রোগী এলে অবজারভেশনে (পর্যবেক্ষণে) রাখা হয়।

সম্রাটকে ছাড়পত্র কখন দেয়া হতে পারে জানতে চাইলে ডা. আফজালুর বলেন, তার চিকিৎসার কোনো অবহেলা করা হচ্ছে না। আজ ছুটির দিন সত্ত্বেও চিকিৎসকরা সময় দিচ্ছেন। মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। আগামীকাল মেডিকেল বোর্ড মিটিং বসবে। সেখানেই সবকিছু বিবেচনায় সিদ্ধান্ত নেয়া হবে, তার চিকিৎসা চলবে নাকি ডিসচার্জ করা হবে। সম্রাট সাহেব এখন স্টেয়াবল। রিপোর্টও ভালো।

মেজর কোনো পরীক্ষা বাকি আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, মেজর সব পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে আজ যেটাকে মাইনর বলছেন কালই সেটা মেজর হতে পারে। কারণ হৃদরোগ বলে কথা।

আজকের পত্রিকা/কেএফ