যুদ্ধ জাহাজ। ছবি: সংগৃহীত

পূর্ব এশিয়ার জলসীমায় রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের ২টি যুদ্ধজাহাজ ‘অল্পের জন্য’ নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষ এড়াতে সক্ষম হয়েছে। শুক্রবার ফিলিপিন্স সাগরে দুই দেশের রণতরী দুটি মাত্র ৫০ মিটার ব্যবধানে চলে এসেছিল।

শ্বাসরুদ্ধকর এ পরিস্থিতি এবং ‘বিপজ্জনক ও অপেশাদার আচরণের’ জন্য মস্কো ও ওয়াশিংটন একে অপরকে দায়ী করছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

সিরিয়ার উপকূলে রাশিয়ার একটি যুদ্ধবিমানের হাতে মার্কিন গুপ্তচর বিমানের পথরোধের অভিযোগ নিয়ে ওয়াশিংটন ও মস্কোর উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়ের কয়েক দিন পর এশিয়ার জলসীমায় এ ঘটনা ঘটল।

রুশ সাংসদ অ্যালেক্সেই পুশকভ দুই দেশের এই চাপা উত্তেজনাকে ‘বিপজ্জনক’ হিসেবে অ্যাখ্যা দিয়েছেন।

রাশিয়ান প্যাসিফিক ফ্লিট বলছে, শুক্রবার মার্কিন রণতরী ইউএসএস চ্যান্সেলরসভিল গতিপথ বদলে রুশ ডেস্ট্রয়ার অ্যাডমিরাল ভিনোগ্রাদভের ৫০ মিটার দূরত্বে চলে আসে। সংঘর্ষ এড়াতে রুশ যুদ্ধজাহাজটি ‘জরুরি ব্যবস্থা’ নিতে বাধ্য হয় বলেও জানিয়েছে তারা।

শুক্রবার এ ঘটনার সময় পূর্ব চীন সাগরের পূর্বাংশে ফিলিপিন্সের জলসীমায় বেশ কয়েকটি রুশ যুদ্ধজাহাজ অবস্থান করছিল।

‘মার্কিন গাইডেড মিসাইল ক্রুজার চ্যান্সেলসভিল হুট করে তার পথ বদলে অ্যাডমিরাল ভিনোগ্রাদভের ৫০ মিটার দূরত্বে চলে আসে,’ বিবৃতিতে জানিয়েছে রুশ প্যাসিফিক ফ্লিট।

রেডিওতে যোগাযোগ করে মার্কিন জাহাজের কমান্ডারকে তাৎক্ষণিকভাবে সতর্ক ও এ অপেশাদার আচরণের প্রতিবাদ জানানো হয়েছে, বলেছে তারা।
‘কোনোমতে এড়ানো সংঘর্ষের’ ঘটনা নিয়ে রাশিয়ার দেয়া ভাষ্য প্রত্যাখ্যান করেছে মার্কিন নৌবাহিনী।

‘ফিলিপিন্স সাগরে কার্যক্রম পরিচালনার সময় রুশ ডেস্ট্রয়ারটির বিপজ্জনক আচরণের কারণে সংঘর্ষ এড়াতে ইউএসএস চ্যান্সেলরভিলকে পিছিয়ে আসতে হয়,’ বলেছেন মার্কিন সপ্তম নৌবহরের মুখপাত্র কমান্ডার কেইটন ডস।

যুক্তরাষ্ট্র বিপজ্জনক আচরণ করেছে বলে মস্কো যে অভিযোগ করেছে তাকে ‘অপপ্রচার’ বলেও উড়িয়ে দেন তিনি। রুশ ডেস্ট্রয়ারটি চ্যান্সেলরসভিলের ৫০ থেকে ১০০ ফুটের মধ্যে চলে আসায় মার্কিন জাহাজ ও এর ক্রদের নিরাপত্তা হুমকি মুখে পড়েছিল বলেও জানান তিনি।

মার্কিন ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষা মন্ত্রী প্যাট্রিক শানাহান বলেছেন, ওয়াশিংটন এ ঘটনায় মস্কোর কাছে আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদলিপি পাঠাবে।

‘রাশিয়ানদের সঙ্গে সামরিক পর্যায়ে যোগাযোগ আছে আমাদের, অবশ্যই আমরা সেখানে এ প্রসঙ্গ তুলবো। যদিও দিনশেষে আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে নিরাপত্তা। এ ঘটনা ওই অঞ্চলে আমাদের কার্যক্রমে বাধা হতে পারবে না,’ বলেছেন তিনি।

আজকের পত্রিকা/এমইউ