খুন

যশোরে সালিশকালে ডেকে নিয়ে ছুরিকাঘাতে জনি হোসেন (২৮) নামে যুবককে খুন করা হয়েছে। সোমবার রাতে সদর উপজেলার নরেন্দ্রপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত জনি পার্শ্ববর্তী মণিরামপুর উপজেলার তাড়ুয়াপাড়া গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে। এ ঘটনায় পুলিশ নরেন্দ্রপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জিএম সবুজ হাসানসহ চারজনকে আটক করেছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে।

নিহতের স্বজনরা জানান, নরেন্দ্রপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জিএম সবুজ হাসান ও বর্তমান সভাপতি শাহিন আলম মাটি কেনাবেচার ব্যবসা করেন। তারা বিভিন্ন গ্রাম থেকে মাটি কিনে ইটভাটাসহ বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করেন। সম্প্রতি নরেন্দ্রপুরের হাসিবের জমির মাটি কিনতে চান দুজনই।

এনিয়ে বিরোধের সৃষ্টি হলে সোমবার সন্ধ্যার পর নরেন্দ্রপুর মাস্টারপাড়ায় দুই পক্ষ সমঝোতা বৈঠকে বসে। সেখানে শাহিন মোটরসাইকেল, ইজিবাইক ও ট্রেকারে করে ২০/২২ জনকে নিয়ে আসেন। বেঠকে সবুজের পক্ষে ছিলেন জনি। বৈঠক চলাকালে শাহিনের পক্ষের কয়েকজন জনিকে ডেকে পাশে নিয়ে বুকে ছুরিকাঘাত করেন। এতে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়।

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের মেম্বার সুজিত বিশ্বাস জানান, সোমবার রাত ৯ টার দিকে নরেন্দ্রপুর মোল্লাপাড়া এলাকায় হট্টগোল শুনে এলাকাবাসী ছুটে গিয়ে দেখতে পান রাস্তার উপর একজনকে ২০/২৫ জন মিলে এলোপাতাড়ি মারপিট করছে। একপর্যায়ে গ্রামবাসীর ধাওয়ার মুখে ঘটনাস্থল থেকে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। সেখান থেকে জনি নামে এক যুবককে মারাত্মক জখম অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়।

তার পাশে হামলাকারীদের ব্যবহৃত লাল রং এর একটি সুজুকি জিকসার মোটরসাইকেল পড়ে ছিল। মোটরসাইকেলটি নরেন্দ্রপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি শাহীন আলমের বলে জানা গেছে।

যশোর পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম জানান, স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা জিএম সবুজ হাসান ও শাহিন আলম মাটি কেনাবেচার ব্যবসা করেন। তারা সম্প্রতি একজনের জমির মাটি কিনতে চান দুজনই। এনিয়ে বিরোধের সৃষ্টি হয়। সোমবার সন্ধ্যায় দুই পক্ষ সমঝোতা বৈঠকে বসে।

বৈঠক চলাকালে শাহিনের পক্ষের কয়েকজন সবুজের গ্রুপের জনিকে ডেকে পাশে নিয়ে বুকে ছুরিকাঘাত করলে তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে রাত ১১টার দিকে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। রাত ৩টার দিকে মরদেহ যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে মর্গে নেয়া হয়।

তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জিএম সবুজ হাসান, সুজন পাল, আল-অমিন ও রাসেল নামে চারজনকে আটক করা হয়েছে।

-এইচ আর তুহিন