মরদেহ। প্রতীকী ছবি।

যশোর জেলার ঝিকরগাছা উপজেলার গুলবাগপুর গ্রামে খাদিজা বেগম (৫০) নামে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ১১ মার্চ সোমবার রাত ১০টার দিকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পথে ফরিদপুরে গৃহবধূর মৃত্যু হয়। নিহত খাদিজা বেগম ওই গ্রামের নাবেদ আলীর স্ত্রী।

নিহতের মেয়ে রূপালি জানান, তাদের একটি ছাগল তার চাচার বাড়িতে গেলে দ্বন্দ্বে সৃষ্টি হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সোমবার রাতে চাচা রজব আলী, তার ছেলে মানিক ও জামাই সামাউল লোহার রড, পাইপ ও লাঠিসোঁটা দিয়ে বেধড়ক পেটাতে পেটাতে মা খাদিজাকে ঘর থেকে বারান্দায় নিয়ে আসে।

এ সময় ঠেকাতে গেলে তাদেরকে মারপিট করা হয়। পরে মাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে আনলে ডাক্তার ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার কথা বলেন। ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পথে ফরিদপুরে মায়ের মৃত্যু হয়। পরে মরদেহ যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ডাক্তার আহমেদ তারেক শামসু বলেন, গুরুতর অবস্থায় খাদিজা বেগমকে হাসপাতালে আনা হয়েছে। পরে তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়। কিন্তু পথিমধ্যে তার মৃত্যু হয়েছে।

ঝিকরগাছা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রাজ্জাক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আজকের পত্রিকা/শায়েল