শরিফুল ইসলাম, মোংলা (বাগেরহাট) : মোংলার কানাইনগর গ্রামে মাটিতে হাটুগাড়া গাছের ডালের সাথে ঝুলান্ত অবস্থায় স্বপন মন্ডল নামে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

ওই ব্যক্তি এদেশে জন্ম হলে ও সে ভারতীয় নাগরীক বলে জানিয়েনে স্থানীয়রা।

তার মৃত্যু নিয়ে এলাকায় নানা গুনজন চলছে। কেউ বলছে আত্মহত্যা আবার কেউ বলছেন পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে তাকে। তবে ময়নাতদন্ত রিপোটের ওপর ভিত্তি করে এগুতে চাইছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানান, মোংলা উপজেলার চাদঁপাই ইউনিয়নের কালীকাবাড়ী এলাকায় জন্ম স্বপন মন্ডলের।

তিনি এখান থেকে দীর্ঘ ৩০ বছর যাবত ভারতে বসবাস করার ফলে সেখানের নাগরিক স্বপন মন্ডল।

প্রায় ৩ মাস আগে মোংলায় পৈত্তিক বাড়িতে বেড়াতে এসে করোনার লকডাউনে আটকে পড়েন সে। আর দীর্ঘ সময় আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে অবস্থানকালে ছোট ভাই অশোক ও চাচা করুন মন্ডলের সঙ্গে জমি বিক্রয় নিয়ে বিরোধে জড়িয়ে পড়েন।

এ নিয়ে কয়েক দফায় মিট মিমাংসার জন্য শালীস বৈঠকও বসে এলাকায়।

এ অবস্থায় সোমবার দিনগত গভীর রাতে মামা জীতেন গোষামীর বাড়ি থেকে নিখোঁজ হওয়ার পর সকালে একই ইউনিয়নের কানাইনগর কালীমন্দির সংলগ্ন সুরেশ বিশ্বাসের বাড়ির আঙ্গীনায় একটি গাছের সঙ্গে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় দেখতে পায় এলাকাবাসী। পরে মঙ্গলবার সকালে পুলিশে খবর দেয় স্থানীয়রা। প্রায় ৬ ঘন্টা পর ঘটনাস্থাল থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ প্রশাসন।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন মোংলা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আসিব ইকবাল ও মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল বাহার চৌধুরী। তবে ওই ব্যক্তির মৃত্যু নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে নানা গুঞ্জন চলছে। জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে আত্মহত্যা বা হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে দাবী স্থানীয়দের।

এ বিষয় মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, প্রাথমিক তদন্ত ও মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়া গেলে আত্মহত্যা নাকি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড তা নিশ্চিত হওয়া যাবে বলে জানায় এ কর্মকর্তা।

  • 19
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    19
    Shares