মরদেহ। প্রতীকী ছবি

মেহেরপুর জেলার গোপালপুর থেকে তহুরা বেগম ও গাংনী উপজেলার হাড়ভাঙা থেকে পারভীনা খাতুনের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

(১০ অক্টোবর) বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে মরদেহ দুটি উদ্ধার করে পুলিশ।

গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবাইদুর রহমান জানান, কাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রাহাতুল্লার শ্যালিকা মানুষিক প্রতিবন্ধী পারভীনা খাতুন (৪৫) হাড়ভাঙা মাদরাসা পাড়া এলাকার তৈয়বুল ইসলামের টং দোকানের সামনের চালার সঙ্গে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করেন।

তিনি মানসিক প্রতিবন্ধী হওয়ায় তার স্বামী বালিয়াঘাট গ্রামের জৌলুস হোসেন প্রায় ১৩ বছর আগে তালাক দেন। মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

অপরদিকে, গোপালপুর গ্রামের আব্দুল ওহাবের স্বামী পরিত্যক্ত মেয়ে তহুরা বেগমের মরদেহ দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। মরদেহটি উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তহমিনার মৃত্যু রহস্যজনক হওয়ায় ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হচ্ছে। তবে কেউ লিখিত অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।