বানিয়াচং উপজেলা পরিষদ

হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে মৃত ক্যান্সার রোগীর প্রতিনিধিকে সরকারী অর্থ পাইয়ে দিতে ৫ হাজার টাকা ঘুষ নিয়েছেন সমাজসেবা অফিস সহকারী ফজলুল হক।

সোমবার দুপুরে ডাকযোগে এ সংক্রান্ত একটি লিখিত অভিযোগ প্রেরন করেছেন উপজেলার ৬ নং কাগাপাশা ইউনিয়নের উমর গ্রামের আশ্রাব আলী।

অভিযোগটি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সমাজসেবা অফিসার বরাবর প্রেরন করা হয়। এ বিষয়টি জানাজানি হলে অফিস পাড়া ও উপজেলায় তোলপাড় শুরু হয়েছে।

সূত্র জানায়, কয়েক মাস আগে উমরপুর গ্রামের সোলেমা বেগম (৪৮) ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হয়ে বানিয়াচং সমাজসেবা অফিসে আর্থিক সহায়তার আবেদন করেন।

এসময় তিনি তার নিজের একাউন্টের চেক বইয়ে স্বাক্ষর করেন।

আবেদন করার কিছুদিন পর তিনি মারা যান।

পরে নিহতের ভাই টাকা উত্তোলনের জন্য অফিস সহকারী ফজলুল হকের কাছে গেলে তিনি কয়েকদিন ঘুরিয়ে অবশেষে ৫ হাজার টাকা ঘুষের বিনিময়ে টাকাগুলো সমজিয়ে দেন।

এব্যাপারে নিহতের ভাই আশ্রব আলী জানান অযথাই ঘুষের জন্য ফজলুল হক তাকে হয়রানি করেছেন। তাই বাধ্য হয়ে ৫ হাজার টাকা ঘুষ দেন।

তিনি জানান ওই সময় বানিয়াচং সমাজসেবা অফিসে কোন অফিসার কর্মরত ছিলেননা।

এ সুযোগে অসৎ উপায়ে অফিস সহকারী ঘুষ-বানিজ্য শুরু করেন।

সমাজসেবা অফিসার সাইফুল ইসলাম প্রধান জানান আমি যোগদান করেছি মাত্র ৪ মাস হলো।

ঘটনাটি তিনি যোগদানের আগের দাবী করে তিনি বলেন ঘুষের বিষয়টি দেখবেন দুদক কর্তৃপক্ষ। আর আমার অফিসের সহকারীর বিরুদ্ধে অভিযোগটি আলাদাভাবে তদন্ত করে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিবেন।

উল্লেখ্য ৪ বছর ওই অফিসে স্থায়ীভাবে কোন অফিসার ছিলেননা। এ সুযোগে ফজলুল হক অফিসকে ঘুষ-বানিজ্যের আখড়ায় পরিনত করেন বলে জানান ভোক্তভোগীরা।