জন্মগত ভাবেই হৃদযন্ত্রের এক জটিল রোগে ভুগছে মুন্সীগঞ্জ শহরের দক্ষিণ ইসলামপুর এলাকার পাঁচ বছরের শিশু নুসরাত জাহান নিশু। তার হৃদযন্ত্রে পাঁচটি ফুটো ধরা পড়েছে।

এ অবস্থায় জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষনে রয়েছে অবুঝ এ শিশু। নুসরাত জাহানকে বাঁচাতে প্রেসমেকার বসাতে হবে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

কিন্তু নুসরাতের পরিবারের পক্ষে প্রেসমেকার বসানোর মতো খরচ বহন করার সক্ষমতা নেই। এ অবস্থায় তার চিকিৎসার জন্য বিত্তবানদের দিকে তাকিয়ে আছে পরিবারটি। নুসরাত শহরের দক্ষিন ইসলামপুর এলাকার আল ইসলামের মেয়ে।

নুসরাতের মা মৌসুমী বেগম জানান, রাজধানীর হার্ট ফাউন্ডেশনে চিকিৎসা করাতে গেলে শিশু নুসরাত জাহানের হৃদযন্ত্রে পাঁচটি ফুটো ধরা পড়ে। তাকে বাঁচাতে হলে ওপেন হার্ট সার্জারীর মাধ্যমে হৃদযন্ত্রে প্রেসমেকার বসাতে হবে জানিয়েছেন সেখানকার চিকিৎসকরা। নুসরাতের এই চিকিৎসার জন্য ৬ লাখ টাকা প্রয়োজন।

কিন্তু পরিবারের পক্ষে মেয়ের চিকিৎসার এ খরচ মেটানো সম্ভব নয়। তাই রাজধানীর হাট ফাউন্ডেশন থেকে মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে আসে পরিবারটি।

মা মৌসুমী বেগম বলেন, দিন যত যাচ্ছে, নুসরাতের মৃত্যু ঝুকি তত বাড়ছে। কাজেই নুসরাতকে বাঁচাতে প্রেসমেকার বসানোর জন্য বিত্তবানদের এগিয়ে আসতে হবে। তিনি বিত্তবানদের সহযোগিতা কামনা করেছেন। সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা- মৌসুমী বেগম, সঞ্চয় হিসাব নং: ০২০০০১২৩৯৭৯৯৫ (অগ্রনী ব্যাংক  মুন্সীগঞ্জ শাখা)। মোবাইল নম্বর- ০১৭৯৮৫৪৬৪৪৪।

মঈনউদ্দিন সুমন/মুন্সীগঞ্জ