দর্শকদের ছুড়ে মারা বিয়ারের বোতল হাতে ডি মারিয়া। ছবি:মেট্রো

২০১৪ সালেই ইস ফন গালের অধীনে ম্যানইউতে খেলেছিলেন আর্জেন্টাইন উইঙ্গার অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। ৩২ ম্যাচে মাত্র ৪ গোল করতে পেরেছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত কোচের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি ঘটিয়ে ৬৩ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে তিনি পাড়ি জমান পিএসজিতে। ম্যানইউ থেকে ডি মারিয়ার চলে যাওয়াকে মেনে নিতে পারেনি ক্লাবটির সমর্থকরা। যে কারণে ডি মারিয়াকে এক প্রকার ঘৃণাই করতে শুরু করে ম্যানইউ সমর্থকরা। মঙ্গলবার ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ম্যানইউর মুখোমুখি হতে আসে যখন পিএসজি, তখন পুরনো ক্লাবের মাঠে আবারও ফিরে আসতে হয় ডি মারিয়াকে।

ম্যাচের ৫৩ মিনিটে প্রেসনেল কিম্বাপ্পেকে দিয়ে কর্ণার কিক থেকে করিয়েছেন প্রথম গোল। এর ৭ মিনিট পর কাইলিয়ান এমবাপেকে উদ্দেশ্য করে দুর্দান্ত এক ক্রস করেছিলেন ডি মারিয়া। যেখান থেকে গোল আদায় করে নেন পিএসজির বিশ্বকাপজয়ী তারকা। কিন্তু এরই মধ্যে মাঠেই চরম অসম্মানজনক কথা-বার্তা শুনতে হয়েছে ডি মারিয়াকে। তাকে উদ্দেশ্য করে দেয়া দুয়ো ধ্বনি সহ্য করেই খেলে যাচ্ছিলেন ডি মারিয়া। কিন্তু বিষয়টা যদি সেখানেই থেমে থাকতো, তাহলে সমস্যা ছিল না। ম্যানইউ সমর্থকরা ডি মারিয়ার উদ্দেশ্যে পানির বোতল এমনকি বিয়ারের বোতল পর্যন্ত ছুঁড়ে মারে। পিএসজির দ্বিতীয় গোলের ঠিক আগ মুহূর্তে কর্নার কিক করতে যাওয়ার সময় ডি মারিয়াকে উদ্দেশ্য করে পানির বোতল ছুঁড়ে মারা হয়। এর একটু পরই মারা হয় বিয়ারের বোতল। ডি মারিয়া আবার হেসে সেই বোতল কুড়িয়ে সেখান থেকে বিয়ার পান করে উল্টো জবাব দিয়ে দেন প্রতিপক্ষ সমর্থকদের।

ডি মারিয়া জানিয়ে দেন, তিনি আগে থেকেই জানতেন ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে গেলে এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি হবেন। তিনি বলেন, ‘প্রথম মিনিট থেকেই আমার জন্য মাঠে নেমে খেলা ছিল কঠিন। কিন্তু আমি তো আগে থেকেই জানতাম, এমন কিছু ঘটতে পারে (এ কারণে আমি মানসিকভাবে প্রস্তুত ছিলাম)।’ অন্যদিকে উয়েফা ম্যানইউ এবং পিএসজি- উভয় ক্লাবকেই জরিমানা করেছে। ম্যানইউকে জরিমানা করা হয়েছে, দলটির সমর্থকদের মাঠে বোতল নিক্ষেপ করার অপরাধে। পিএসজিকে জরিমানা করা হয়েছে গ্যালারিতে আতশবাজি ফোটানো, বোতল নিক্ষেপ এবং দর্শকদের বিরক্তিকর আচরণের জন্য।

আজকের পত্রিকা/এসএমএস