বহুল আলোচিত মিরসরাই ট্র্যাজেডির অষ্টম বর্ষপূর্তি আজ বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই)। ২০১১ সালের ১১ জুলাই মিরসরাই স্টেডিয়াম থেকে বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল ফাইনাল খেলা শেষে বাড়ি ফেরার পথে শিক্ষার্থীদের বহনকারী একটি পিকআপ বড়তাকিয়া-আবু তোরাব সড়কের সৈদালী এলাকায় পাশের একটি ডোবায় উল্টে যায়।

যেখানে ৪৪ জন স্কুলছাত্রসহ ৪৫ জন নিহত হন।

মিরসরাই ট্র্যাজেডিতে আবু তোরাব উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩৪ জন, প্রাইমারি স্কুলের ৪ জন, আবু তোরাব ফাজিল মাদ্রাসার ২জন, প্রফেসর কামাল উদ্দিন চৌধুরী কলেজের ২ জন শিক্ষার্থী ছিলো।

এছাড়া একজন অভিভাবক ও দুইজন ফুটবলপ্রেমিও মারা যায়। এক অভিভাবক, ২ জন ফুটবলপ্রেমী যুবকসহ ৪৫ জনের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে রচিত হয় মিরসরাই ট্র্যাজেডি।

মিরসরাই ট্র্যাজেডিতে ওই সময় শোকার্ত পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে ছুটে আসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী খালেদা জিয়াসহ দেশ-বিদেশের নানা শ্রেণী পেশার মানুষ।

মিরসরাই ট্র্যাজিডিতে সবচেয়ে বেশি শিক্ষার্থী নিহত হওয়া আবু তোরাব উচ্চ বিদ্যালয়ের মূল ফটকে নির্মাণ করা হয় স্মৃতিস্তম্ভ ‘আবেগ’ আর দুর্ঘটনাস্থলে নির্মাণ করা হয় স্মৃতিস্তম্ভ ‘অন্তিম’।

এই মর্মান্তিক দূর্ঘটনা এখনো ভুলতে পারছে না নিহত শিক্ষার্থীদের পরিবার, স্কুলের সহপাঠী, শিক্ষক এবং প্রত্যক্ষদর্শীরা।

আজকের পত্রিকা/কামরুল হাসান/চট্টগ্রাম