সরকারের পক্ষ থেকে মেধাবীদের মাস্টার্সের জন্য ৬০ লাখ টাকা ও পিএইচডির জন্য ২ কোটি টাকা শিক্ষাবৃত্তি দেয়া হবে। ছবি-সংগৃহীত

বাংলাদেশ গণপ্রজাতন্ত্রী সরকার ‘প্রধানমন্ত্রী ফেলোশিপ ২০১৯’ ঘোষণা করেছে, এর আওতায় সরকারের পক্ষ থেকে মেধাবীদের মাস্টার্সের জন্য ৬০ লাখ টাকা ও পিএইচডির জন্য ২ কোটি টাকা শিক্ষাবৃত্তি দেয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের গভরনেন্স ইনোভেশন ইউনিটের “টেকশই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জনে জনপ্রশাসনের দক্ষতা বৃদ্ধিকরণ” প্রকল্পের উচ্চতর শিক্ষায় (মাস্টার্স এবং পিএইচডি) “প্রধানমন্ত্রী ফেলোশিপ” প্রদানের লক্ষ্যে বাংলাদেশের নাগরিকগণের নিকট থেকে আবেদন পত্র আহবান করা হয়েছে। এই শিক্ষাবৃত্তি পেতে হলে আবেদনকারীকে অবশ্যই জন্মসূত্রে বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে।

আবেদনের যোগ্যতাঃ

২০১৯ সালের ১ জুলাই থেকে ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে নিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফুল টাইম শর্তহীন অফার লেটার সংগ্রহ করতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক রেঙ্কিং ১ থেকে ৩০০ এর মধ্যে হতে হবে।

The Times Higher Education World University Ranking 2019 বা QS World University Rankings 2019 অনুযায়ী।

IELTS এর ফলাফল ৬ বা তার উপর হতে হবে এবং TOEFL এর ফলাফল ৮০’র উপর হতে হবে।

আবেদনকারীর বয়সসীমা পিএইচডি এর জন্য ৪৫ এবং মাস্টার্স এর জন্য ৪০ বছর হতে হবে।

আবেদনের নিয়মঃ

(pmo.gov.bd) এই সাইট থেকে আবেদনপত্রটি ডাউনলোড করুন এবং তা নির্ভুলভাবে পূরণ করুন।

এরপর আবেদনপত্রটি ইমেইল করে দিন [email protected] (পিএইচডি) [email protected] (মাস্টার্স) এই ঠিকানায়।

আপনার আবেদনপত্রটির সাথে নিম্নোক্ত নথিগুলো সংযুক্ত করে পাঠাবেন-

Microsoft Word এবং PDF, দুই ফর্মেটেই পাঠাতে হবে।

আপনার স্টেটমেন্ট অফ পারপাস, স্কলারশিপের উপযুক্ত সময়, আপনার প্রস্তাবিত গবেষণার সাথে টেকশই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নের সম্পর্ক, পেশাগত জীবনে আপনার গবেষণার সম্ভাবনা এবং পেশাগত জীবনের অভিজ্ঞতা পাঠাতে হবে।

শিক্ষাজীবনের সকল সনদ এবং নম্বরপত্র।

জাতীয় পরিচয়পত্র।

TOFEL/IELTS’র ফলাফল।

শর্তহীন অফার লেটার।

অভিজ্ঞতার সনদ।

সদ্য তোলা ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।

আবেদনের শেষ তারিখ মার্চ ৩১, ২০১৯।

আজকের পত্রিকা/মির