তিন হাজার কর্মী ছাঁটাই করলো ভারতের অটোমোবাইল প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান মারুতি সুজুকি। আর্থিক মন্দা এবং অতিরিক্ত করের বোঝায় বেসামাল হয়ে পড়েছে গাড়ি শিল্প।

দিল্লিতে বার্ষিক সাধারণ সভায় শেয়ার হোল্ডারদের সঙ্গে এক বৈঠকে সংস্থাটির চেয়ারম্যান আর সি ভার্গব তিন হাজার অস্থায়ী কর্মীকে ছাঁটাইয়ের কথা জানিয়েছেন।

চলতি বছরের শুরু থেকেই চ্যালেঞ্জের মুখে রয়েছে অটোমোবাইল সেক্টর। দু’চাকা বা চার চাকা কোনো গাড়িই প্রত্যাশা অনুযায়ী বিক্রি হচ্ছে না। বিশ্বের বৃহত্তম বাইক এবং গাড়ি প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলোকেও লোকসানের মুখ দেখতে হচ্ছে। আর এর প্রভাব সবচেয়ে বেশি পড়েছে ভারতের বাজারে।

মারুতি সুজুকি বলছে, বিশ্ব বাজারে মন্দার প্রভাব পড়ছে দেশের বাজারেও। বাজারে চাহিদা একেবারেই তলানিতে। জুলাইয়ের সমীক্ষা বলছে, টানা নয়মাস গাড়ির বিক্রি কমতে কমতে একেবারেই তলানিতে এসে ঠেকেছে। নানা অফার দিয়ে বা গাড়ির দাম লাগাতার কমিয়েও কোনো কাজ হচ্ছে না।

এছাড়া সরকার গাড়ি প্রস্তুতকারী সংস্থাগুলোর ওপর অতিরিক্ত কর বসাচ্ছে। তার উপর নিরাপত্তা সংক্রান্ত অতিরিক্ত শর্তও চাপানো হয়েছে। এর জেরে দাম কমাতে গেলেও লোকসানের মুখে পড়তে হচ্ছে।

এছাড়া গাড়ি শিল্পের পতনের জন্য উবারের মতো সংস্থাগুলোর জনপ্রিয়তাও একটি কারণ। সহজেই ক্যাব ভাড়া পাওয়া যাওয়ায় অনেকেই গাড়ি কিনছেন না।

এসব সমস্যার কারণে রীতিমতো ধুঁকছে গাড়ি শিল্প। মারুতি সুজুকির তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ওই অস্থায়ী কর্মীদের সঙ্গে আর নতুন করে কোনো চুক্তি হচ্ছে না। তাদের পাওনা কীভাবে মেটানো যায়, সেটাই ভেবে দেখা হচ্ছে।

ওই কর্মীদের কোনো ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে কিনা তাও স্পষ্ট করেনি মারুতি সুজুকি। তবে এই প্রথম নয়, একটি আন্তর্জাতিক সংস্থার করা সমীক্ষা অনুযায়ী, গত ৬ মাসে গাড়ি ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত প্রায় সাড়ে ৩ লাখ মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছেন।