রাজৈর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক পাট্টুকে হাতকড়া পড়িয়ে থানায় নেয়া হচ্ছে।

মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী পক্ষে কাজ করতে গিয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক পাট্টু পুলিশের হাতে আটক হয়েছেন। তিনি আনারস প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী মহসিন মিয়ার পক্ষে নির্বাচনে কাজ করে আসছিলেন। এখানে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোতালেব মিয়া।

স্থানীয় ও সংশ্লিস্ট একাধিক সূত্র জানায়, রাজৈর উপজেলার গত প্রায় দেড় যুগ ধরে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক পাট্টু এবারের নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মহসিন মিয়ার পক্ষে কাজ করছিলেন। এই মহসিন মিয়া বিগত নির্বাচনে পাইকপাড়া ইউনিয়ন পরিষদে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেন।

এখানে তিনি আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী তার চাচাতো ভাই শাহাদাত হোসেনের কাছে হেরে যান। এই ইউনিয়নের নির্বাচনে তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করলেও তার বিপক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোতালেব মিয়া অবস্থান নেয়ায় তিনি হেরে যান-এই ধারণার কারণেই তিনি এবার উপজেলা নির্বাচনে মোতালেব মিয়ার প্রতিপক্ষ হিসেবে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এদিকে রাজৈর উপজেলা আওয়ামী লীগ বর্তমানে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী রাজনৈতিক ব্যক্তির তত্ত্বাবধানে দুটি আলাদাভাবে বিভক্ত। এরই অংশ হিসেবে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক পাট্টু রাজনৈতিকভাবে মোতালেব মিয়ার নির্বাচন না করে মহসিন মিয়ার নির্বাচন করে আসছিলেন। এছাড়া রাজৈর উপজেলা আওয়ামী লীগের একটি অংশ মহসিন মিয়ার নির্বাচন করে। গ্রেপ্তার হওয়া এমদাদুল হক পাট্টু সম্পর্কে নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মহসিন মিয়ার স্ত্রীর খালাতো ভাই।

পুলিশ সূত্র জানায়, শনিবার বিকেলে এমদাদুল হক পাট্টুর নিজ ইউনিয়ন বদরপাশার শংকরদী পাড় এলাকায় মহসিন মিয়ার নির্বাচন নিয়ে পোলিং এজেন্টদের সাথে যোগাযোগের সময় তাকে অবৈধভাবে টাকা বিলি ও জাল টাকা আছে অভিযোগ তুলে পুলিশে খবর দেয়া হয়। রাজৈর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

তবে রাজৈর থানার নবনিযুক্ত ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহজাহান মিয়া বলেন, এমদাদুল হক পাট্টুর কাছে কোন টাকা পাওয়া যায় নি। তবে সে টাকা বিলি করতে গিয়েছিল বলে এলাকাবাসী দাবী করে তাকে আটক করে পুলিশ খবর দেয়। তার বিরুদ্ধে একটি মারামারি মামলা থাকায় সেই মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সে গত ১০ মার্চ তারিখের একটি সংঘর্ষের মামলার এজাহারভূক্ত আসামী।

এদিকে ‘ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক পাট্টুকে জাল টাকাসহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে’ ফেসবুকে রাজৈর উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি সাহাবুদ্দিন শাহসহ বিভিন্ন মানুষের ফেসবুকে হাতকড়া পরিহিতি ছবিসহ ছড়িয়ে পড়ায় দলীয় নেতা-কর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

এর আগে স্বতন্ত্র প্রার্থী মহসিন মিয়ার অভিযোগের প্রেক্ষিতে রাজৈর থানার ওসি জিয়াউল মোর্শেদকে প্রত্যাহার এবং আওয়ামী লীগের প্রার্থীর ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবেই দেখছে দলীয় লোকজন। এ নিয়ে তারা ফেসবুকে পাল্টাপাল্টি মন্তব্যও করেছে।

জহিরুল ইসলাম খান, দক্ষিণ-মধ্যাঞ্চলীয় ব্যুরো