মোহাম্মদ সেলিম উদ্দিন

মাদকের বিরুদ্ধে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহনের সিদ্ধান্তে পুলিশও কঠোর অবস্থানে মাঠে নেমেছে। যার ধারাবাহিকতায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার (ওসি) মোহাম্মদ সেলিম উদ্দিন সদর থানা এলাকায় মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। তিনি মাদক দমনে সবাইকে সাথে নিয়ে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে চান। মাদক একটি সামাজিক সমস্যা ও পারিবারিক অশান্তির মূল কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। যা দমন করা না হলে দেশকে এগিয়ে নেয়া যাবে না।

১২ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার বিকেলে এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে তিনি এ অভিমন ব্যক্ত করেন। ওসি আরও বলেন, মাদক কতটুকু ক্ষতিকর তা যদি পরিবার ও সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তরুণদের বোঝানো হয় আর তাদের মধ্যে যদি এই বোধ জাগানো যায়, তাহলে মাদক নিয়ন্ত্রণে অনেকাংশেই কাজে আসবে।

মোহাম্মদ সেলিম উদ্দিন। ছবি : সংগৃহীত

মাদক এবং মাদক বিক্রেতা দেশ ও জাতির শত্রু। সে জন্য পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন খান বিপিএম’র (বার) নির্দেশে ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে মাদকমুক্ত করতে পুলিশের পক্ষ থেকে যুদ্ধ ঘোষণার মাধ্যমে কঠোর অভিযান চালিয়ে ইতিমধ্যে অসংখ্য মাদককারবারী ও মাদকসেবীদের আটক করা হয়েছে উল্লেখ করে ওসি সেলিম বলেন, এ ব্যাপারে কারো ছাড় নেই।
তিনি মাদক নির্মূলে সমাজের আপামর জনগণকে এগিয়ে আসারও আহবান জানান।

তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়াকে মাদকের অভিশাপ থেকে মুক্ত করতে এবং মাদকের রিুদ্ধে জনমত গড়ে তুলতে গণমাধ্যমের সহায়তা কামনা করেন।

জনসাধারণের উদ্দেশ্য করে ওসি বলেন, আমার ব্যবহৃত সরকারি ০১৭১৩৩৭৩৭৩০। এই মোবাইল নম্বরে মাদক ব্যবসায়ীদের সম্পর্কে তথ্য দিয়ে পুলিশকে সহযোগীতা করবেন। তথ্য দাতাদের পরিচয় আমরা গোপন রাখবো।

এনামুল হক/ব্রাহ্মণবাড়িয়া