ধর্ষণ। প্রতীকী ছবি

মাগুরায় শালিখায় পঞ্চম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ ও গর্ভের বাচ্চা নষ্ট করার অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় আব্দুল মান্নান মোল্যা নামের এক ব্যাক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আব্দুল মান্নান (৬০) শালিখার হাজরাহাটি গ্রামের আরজন মোল্লার পুত্র।

শালিখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তরীকুল ইসলাম জানান, আব্দুল মান্নান পাঁচ-ছয় মাস আগে প্রতিবেশি পঞ্চম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে ফুসলিয়ে ধর্ষণ করে। এ সময় এ ঘটনা কাউকে জানালে তাকে মেরে ফেলার ভয় দেখায় সে । যে কারনে ভয়ে কাউকে না জানিয়ে বিষয়টি চেপে যায় মেয়েটি। কিন্তু সম্প্রতি ওই স্কুল ছাত্রীর অস্বাভাবিক শরীরিক গঠন দেখে তার পরিবার পেটে টিউমার হয়েছে মনে করে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যায় তাকে।

গত ৭ মে আট্রাসনোগ্রাফি করার পর চিকিৎসক জানান, সে পাঁচ মাসের গর্ভবতী। এ সময় মেয়েটি তার মায়ের কাছে সব ঘটনা খুলে বলে।

বিষয়টি জানাজানি হলে আব্দুল মান্নান বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়।

গত ১০ মে মেয়েটির মা আত্মীয় বাড়ি বেড়াতে গেলে এ সুযোগে পলাতক অবস্থায় অব্দুল মান্নান তার লোকদের দিয়ে মেয়েটিকে ভাল ডাক্তার দেখানোর কথা বলে মাগুরার একটি ক্লিনিকে নিয়ে এসে পেটের বাচ্চটি নষ্ট করে। এ ঘটনায় ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রীর মা বাদি হয়ে গত ২০ মে শালিখা থানায় ধর্ষণ, গর্ভের বাচ্চা নষ্ট ও নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে আব্দুল মান্নান মোল্লার নামের মামলা দায়ের করেন।

শালিখা থানা পুলিশ ২৪ মে শুক্রবার দিবাগত রাতে মাগুরা সদরের একটি গ্রাম থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আব্দুল মান্নানকে গ্রেপ্তার করে করে। প্রাথমিক ভাবে ধর্ষক আব্দুল মান্নান পুলিশের কাছে ধর্ষণের বিষয়টি স্বীকার করেছে বলে জানান ওসি তরীকুল ইসলাম ।

আজকের পত্রিকা/আরাফাত হোসেন/মাগুড়া