ভ্যালেন্টাইনে প্রত্যেকেই নিজের সাধ্যমতো প্রিয়জনের জন্য উপহার কিনতে চেষ্টা করেন। ছবি: সংগৃহীত

ভালোবাসার মানুষটিকে খুশি করতে পারলে নিজের কাছেই অন্যরকম ভালো লাগা কাজ করে। যে যার সাধ্যমতো ভালোবাসা দিবসে প্রিয়জনের জন্য উপহার কিনতে চেষ্টা করেন। রাজধানীর কয়েকটি শপিং সেন্টার ঘুরে দেখা গেল, কার্ডের দোকানগুলোতে উপচে পড়া ভিড়। বসুন্ধরা সিটির আর্চিস গ্যালারিতে ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে কার্ড, শোপিস, চকোলেট বক্স, এবং মগ ইত্যাদি কিনতে দেখা যায়। মান, আকার এবং নকশার ওপর নির্ভর করে এগুলোর দাম ১৫০ থেকে ২০০০ টাকা।

আমরা আসলে অনেকেই ঠিকমতো বুঝতে পারি না ঠিক কী দিয়ে প্রিয়জনকে সবচেয়ে বেশি মুগ্ধ করা যায়। হ্যাঁ, হয়তো প্রিয়জনকে জিজ্ঞেস করে নিলে ভালো হতো, কিন্তু তাতে ঠিক ব্যাপারটা জমে ওঠবে না, চমকে দেওয়ার মধ্যে যে আনন্দ আছে, তা থেকে বঞ্চিত হতে হবে। অথবা ‘ভালোবাসা দিবসে কী চাও তুমি’ এমন প্রশ্ন করলে হয়তো সে গেয়ে ওঠবে- ‘কিচ্ছু চাইনি আমি আজীবন ভালোবাসা ছাড়া’। তাই এই লেখা পড়ে উপহার দেওয়া নিয়ে কিছু ধারণা নিতে পারেন। শপিংয়ে বের হওয়ার আগেই ঠিক করে নিন, আপনি ঠিক কী কিনতে চান, তাহলে আপনার জন্য বিষয়টা সহজ হবে।

নারীদের জন্য কিনতে পারেন- কার্ড, ফুল, মগ, সানগ্লাস, চকোলেট, গয়না, ব্যাগ, হাতঘড়ি, সুগন্ধি, গয়নার বক্স, ফুলদানি, পেইন্টিংস, ফটোফ্রেম, মোবাইল ফোন সেট, পোশাক, ডায়েরি, সিডি, বইসহ ইত্যাদি। আর পুরুষদের জন্য নেওয়া যেতে পারে- কার্ড, ফুল, মগ, সানগ্লাস, চকোলেট, মানিব্যাগ, সুগন্ধি, চাবির রিং, শেভিং কিটস, হাতঘড়ি, বেল্ট, পোশাক, সিডি, ফটোফ্রেম, কলম, কাফলিংক সেট, টাই, ব্যাগ এবং বই।

যাকে উপহার দেবেন, তার বয়স, রুচি, পছন্দ এবং প্রয়োজন বিবেচনা করে উপহার দিলে সবচেয়ে ভালো হয়। উপহারটি অনেক দামী হতে হবে, এমন কোনো কথা নেই। উপহার কিনতে যেতে পারেন, আড়ং, আলমাস, দেশীদশ, ইনফিনিটি, স্বপ্ন, আইস কুল, হলমার্ক, আর্চিস গ্যালারিসহ রাজধানীর বিভিন্ন শপিংমল বা গিফট শপে।

আজকের পত্রিকা/সিফাত