সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কাছে বিশ্বের অন্যতম পবিত্র শহর বারানসি। ছবি: সংগৃহীত

বয়স বাড়লেই ভারতের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে উত্তরপ্রদেশের পবিত্র ভূমি বারানসি শহরে এসে ভিড় জমায় মানুষ, গোনে মৃত্যুর প্রহর। কারণ তাদের বিশ্বাস, পবিত্রভূমি বারানসিতে মৃত্যু হলে তারা স্বর্গে যাবেন।

বিবিসি জানায়, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের কাছে বিশ্বের অন্যতম পবিত্র শহর বারানসি। যেটা বেনারস বা কাশি নামেও পরিচিত। ভারতের পৌরাণিক কাহিনী মহাভারতের কেন্দ্রীয় চরিত্র পঞ্চপাণ্ডব তাদের চাচাতো ভাইদের সঙ্গে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে জয়লাভের পর নিজেদের পাপের প্রায়শ্চিত্ত করতে এখানেই হাজির হয়েছিলেন।

হিন্দু ধর্ম গ্রন্থানুযায়ী, বারনসিতে মৃত্যু এবং শবদাহ হলে তিনি পুনর্জন্মের চক্র ভাঙতে সক্ষম হবেন। একই সঙ্গে তিনি পাপ থেকে পরিত্রাণ পাবেন।

যারা এখানে বসবাস করেন, তাদের বসবাসের প্রক্রিয়াকে বলা হয় কাশিবাস। ছবি: সংগৃহীত

মৃত্যুর আশায় মানুষ এখানে যেসব হোটেলে থাকেন, সেগুলোকে হোটেল না বলে পরিত্রাণের ঘর বলে ডাকা হয়। যারা এখানে বসবাস করেন, তাদের বসবাসের প্রক্রিয়াকে বলা হয় কাশিবাস। এসব পরিত্রাণের ঘর বিভিন্ন দাতব্য সংস্থা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে থাকে। যারা এসব পরিত্রাণের ঘরে বসবাস করতে আসেন, তারা নিজের মৃত্যু না হওয়া পর্যন্ত এখানে থাকার বাসনা নিয়ে আসেন।

এখানকার ম্যানেজার ভিকে আগারওয়াল বলেন, প্রতিবছর আমাদের কাছে কয়েক টন আবেদন জমা পড়ে। নিজের খরচ বহন করার মতো সামর্থ্য রয়েছে- আমরা তাকেই এক্ষেত্রে গুরুত্ব দিয়ে থাকি। আমরা ৬০ বছরের নিচে কোনো ব্যক্তিকে এখানে থাকার ক্ষেত্রে নির্বাচিত করি না। কাশিবাসের জন্য নিজের খরচ চালানোর জন্য আমরা এক লাখ রুপি অনুদান নিই। বিনিময়ে তিনি মৃত্যুর আগ পর্যন্ত এখানে থাকতে পারবেন। তবে তাদেরকে নিজের রান্না নিজেকেই করতে হবে। এ পরিত্রাণালয়ে কিছু শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত রুমও রয়েছে। যেখানে রুমের সঙ্গে সংযুক্ত বাথরুম রয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য তাদের ঔষধের ব্যবস্থাও রয়েছে।

আজকের পত্রিকা/রিয়া