কলমাকান্দা সড়কের সিধলী বাজারের সন্নিকটে রাজাপুর খালের উপর নির্মিত পাকা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ না হওয়ায় জনসাধারণ ও যানবাহন চলাচলে মারাত্মক সমস্যার সৃষ্টি

দীর্ঘদিনেও ব্রিজের সংস্কার কাজ শেষ না হওয়ায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন নেত্রকোনার কলমাকান্দাসহ বিভিন্ন এলাকার সাধারণ মানুষ। এদিকে নেত্রকোনার ঠাকুরাকোনা-কলমাকান্দা সড়কের বেহাল দশা থাকায় এদিক দিয়ে যানবাহন তথা মানুষ চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। তাই নেত্রকোনা থেকে সিধলী হয়ে কলমাকান্দাসহ বিভিন্ন এলাকায় যাতায়াত করেন মানুষজন।

কিন্তু নেত্রকোনা কলমাকান্দা সড়কের সিধলী বাজারের সন্নিকটে রাজাপুর খালের উপর নির্মিত পাকা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ না হওয়ায় জনসাধারণ ও যানবাহন চলাচলে মারাত্মক সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। ডাইভারশান দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। বর্ষাকালে ডাইভারশানে পানি জমে বড় বড় খানা খন্দের সৃস্টি হয়। বেশি পালি হলে ডাইভারশান সড়ক ডুবে যায়। তখন নৌকা দিয়ে যাতায়াত করতে হয়। এতে করে জনদুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে।

কলমাকান্দা সড়কের সিধলী বাজারের সন্নিকটে রাজাপুর খালের উপর নির্মিত পাকা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ না হওয়ায় জনসাধারণ ও যানবাহন চলাচলে মারাত্মক সমস্যার সৃষ্টি

এলজিইডির অর্থায়নে ২০১৬ সালের ৭ সেপ্টেম্বর থেকে সেতুর কাজ শুরু করে ২০১৮ সালের ১৬ জুন শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু অদ্যাবধি তা শেষ হয়নি। সেতু নির্মাণকালীন কোনো বিকল্প সড়ক নির্মাণ না করায় দুর্ভোগ এখন এই এলাকার জনসাধারণের দুঃখে পরিণত হয়েছে। মোটরসাইকেল, সিএনজি এবং অটোরিকশা কাদায় আটকে গিয়ে যাত্রীদের পড়তে হচ্ছে নানা বিপাকে। নষ্ট হচ্ছে পড়নের কাপড়সহ নানান আসবাবপত্র।

অনেকের সাথে কথা বললে ক্ষোভে তারা জানায়, রাজাপুর সেতুটি নির্মাণের দীর্ঘসূত্রিতার জন্য এখন এই দুই উপজেলার কয়েক লাখ মানুষ রীতিমতো অতিষ্ঠ হয়ে পড়ছে। এলজিইডি কর্তৃপক্ষ ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের চরম গাফিলতির কারণেই এমনটি হয়েছে।

নেত্রকোনা এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মনিরুজ্জামান বলেন, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সময়ক্ষেপণ করায় নির্ধারিত সময়ে নির্মাণ কাজ শেষ করতে পারেনি। দ্রুত কাজ শেষ করতে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে নোটিশ দেওয়া হয়েছে। এখন কাজের গতি এগোচ্ছে।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান রিজভী কনস্ট্রাকশনের স্বত্বাধিকারী হোসাইন আহম্মেদ ওরফে পান্না বলেন, এতবড় সেতুটির কাজে কোনো বিকল্প পথই ধরা ছিল না। এজন্য সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। তবে সেতুর নির্মাণ কাজ দ্রুত শেষ করার লক্ষ্যে কাজ এগোচ্ছে।

অচিরেই ব্রিজের নির্মাণ কাজ শেষ করে জনগণের চলাচলের সুবিধা করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে সরকার, এমনটিই প্রত্যশা নেত্রকোনাবাসীর।

দেবল চন্দ্র দাস/নেত্রকোনা/জেবি