বুধবার ১৭ জুলাই রাজধানীর মিরপুরে বিআইবিএম অডিটোরিয়ামে ‘কর্পোরেট গ্যারান্টি: ডাজ ইট ওয়ার্ক ইন রিকভারি অব লোন’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠক হয়। ছবি: সংগৃহীত।

বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের (বিআইবিএম) এক গোলটেবিল আলোচনায় উপস্থাপিত প্রবন্ধে ব্যাংক ঋণে কর্পোরেট গ্যারান্টিতে আরও সতর্কতার তাগিদ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ঋণ খেলাপীর বিষয়টি ক্রমেই উদ্বিগ্নের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ অবস্থায় কর্পোরেট গ্যারান্টি খেলাপী কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। তবে ব্যাংকারদের ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে গ্যারান্টি সংক্রান্ত বিষয়গুলোতে স্বচ্ছ ধারণা থাকতে হবে।

বুধবার ১৭ জুলাই রাজধানীর মিরপুরে বিআইবিএম অডিটোরিয়ামে ‘কর্পোরেট গ্যারান্টি: ডাজ ইট ওয়ার্ক ইন রিকভারি অব লোন’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে উপস্থাপিত প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে। গোলটেবিল বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন বিআইবিএম-এর মহাপরিচালক এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মহাঃ নাজিমুদ্দিন। তিনি কর্পোরেট গ্যারান্টিতে ব্যাংকারদের আরো সর্তক থাকার ওপর জোরারোপ করেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিআইবিএম-এর অধ্যাপক এবং পরিচালক (গবেষণা, উন্নয়ন ও পরামর্শ এবং প্রশাসন ও হিসাব) ড. প্রশান্ত কুমার ব্যানার্জ্জী। তিনি তার বক্তব্যে কর্পোরেট গ্যারান্টির বিভিন্ন দিক বিশ্লেষণ করেন।

গোলটেবিল বৈঠকে গবেষণা প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন বিআইবিএম-এর সহাকারী অধ্যাপক ড. মোঃ মোশাররেফ হোসেন। পাঁচ সদস্যের একটি গবেষণা দল এ গবেষণা সম্পন্ন করেন। গবেষণা দলে অন্যান্যের মধ্যে ছিলেন বিআইবিএম-এর সহকারি অধ্যাপক ড. মোঃ মহব্বত হোসেন; বিআইবিএম-এর প্রভাষক মাকসুদা খাতুন এবং রিফাত জামান সৌরভ এবং ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড-এর সিনিয়র অ্যাসিসট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম।

গবেষণায় প্রাইমারী এবং সেকেন্ডোরি দুই ধরণের তথ্যের ব্যবহার করা হয়েছে। গবেষণায় দেশের বিভিন্ন বাণিজ্যিক ব্যাংকের কাছ থেকে তথ্য নেওয়া হয়েছে। এর বাইরে বিভিন্ন পর্যায়ে কর্মকর্তাদের সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়। একই সঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংক এবং বিআইবিএম-এর প্রকাশনা থেকে তথ্য নেওয়া হয়েছে।

গোলটেবিল বৈঠকে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিআইবিএম-এর নির্বাহী কমিটির সভাপতি এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস.এম. মনিরুজ্জামান। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিআইবিএম-এর ড. মোজাফফর আহমদ চেয়ার প্রফেসর এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের প্রাক্তন অধ্যাপক ড. বরকত-এ-খোদা; বিআইবিএম-এর সুপারনিউমারারি অধ্যাপক এবং পূবালী ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক হেলাল আহমদ চৌধূরী; বাংলাদেশ ব্যাংক-এর প্রাক্তন নির্বাহী পরিচালক এবং বিআইবিএমের সাবেক সুপারনিউমারারি অধ্যাপক ইয়াছিন আলি।

বিআইবিএম-এর নির্বাহী কমিটির সভাপতি এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস.এম. মনিরুজ্জামান বলেন,ঋণ খেলাপী ব্যাংকিং খাতের পরিচালনা এবং মুনাফার ক্ষেত্রে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। বিষয়টি নিয়ে নীতি নির্ধারকরা ভাবছে, পরিস্থিতি উত্তোরণের জন্য বিভিন্ন পরিকল্পনা করছে। তিনি আরও বলেন, ব্যাংক ঋণে সর্তকতার পাশাপাশি প্রবৃদ্ধি যাতে ক্ষতিগ্রস্থ না হয় সেদিকটা বিবেচনায় রাখতে হবে। সার্বিক দিক বিবেচনা করতে হবে যাতে ব্যাংকও ক্ষতিগ্রস্থ না হয় একই সঙ্গে প্রবৃদ্ধি অর্জনে প্রয়োজনীয় অর্থায়ন হয়।

বিআইবিএম-এর চেয়ার প্রফেসর এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের প্রাক্তন অধ্যাপক ড. বরকত-এ-খোদা বলেন, কর্পোরেট গ্যারান্টির ক্ষেত্রে ব্যাংকারদের সর্তকতা বেশি জরুরী। কর্পোরেট ঋণের ঝুঁকিগুলো সর্ম্পকে ধারণা থাকলে ঋণ প্রদানে দুর্বলতাগুলো ব্যাংকারদের নজরে পড়বে।

পূবালী ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং বিআইবিএম-এর সুপারনিউমারারি অধ্যাপক হেলাল আহমদ চৌধুরী বলেন, কর্পোরেট গ্যারান্টি ঋণের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ব্যাংকারদের কর্পোরেট গ্যারান্টি বিষয়ে অনেক ক্ষেত্রে স্বচ্ছ ধারণা নেই। এ ব্যাংকারদের আরও সতর্ক থাকতে হবে। প্রয়োগে দুর্বলতা কাটাতে হবে। শুধু জমি-জমা জামানত নিয়ে কর্পোরেট ঋণ দেওয়া ঠিক নয়। আইনি কিছু পরিবর্তন প্রয়োজন যাতে ব্যাংকের স্বার্থ রক্ষা পায়। আদালতে একটি আলাদা বেঞ্চ প্রয়োজন যা কর্পোরেট গ্যারান্টি সংক্রান্ত জটিলতা দ্রুত নিরসনে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক নির্বাহী পরিচালক এবং বিআইবিএম-এর সাবেক সুপারনিউমারারি অধ্যাপক মো. ইয়াছিন আলি বলেন, কোন প্রতিষ্ঠান ঋণ খেলাপী হলে অন্য কোন ব্যাংক যেন ঋণ না দেয় সেই বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক-কে দেখভাল করতে হবে।