সড়ক পথে শৃঙ্খলা ফিরেনি। ছবি: সংগৃহীত

সড়ক পরিবহন আইন হয়েছে। কার্যকর হয়নি। আইনে বলা আছে সড়ক দুর্ঘটনায় সর্বোচ্চ শান্তি মৃত্যুদন্ড। এই আইনটি ৫ মাস আগে পাস হয়েছে। কিন্তু বাস্তবায়ন হয়নি। ফলে সড়কে নৈরাজ্য অব্যাহত। গত বছর ৫ হাজার ৫১৪টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ হাজার ২২১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এই অব্যবস্থাপনার কারনে সড়কে বেপরোয়া বাসের প্রতিযোগিতাও বাড়ছে। গত বছর ২৯ জুলাই শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় নিরাপদ সড়ক ও দুর্ঘটনার নামে মানুষ হত্যার সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে আন্দোলনের মুখে করা আইন বেশিরভাগই বাস্তবায়ন হয়নি।

আইনটি কিভাবে প্রয়োগ হবে এ নিয়ে সুনির্দিষ্ট বিধি না থাকায় পুলিশও আইনের প্রয়োগ করতে পারছে না। এর ফলে নিরাপদ সড়কের ব্যবস্থাপনার যে দাবি ছিল তা অনেকটা ব্যর্থ হয়ে যাচ্ছে।

১৯ মার্চ ফের জেব্রাক্রসিং দিয়ে রাস্তা পার হওয়ার সময় বেপরোয়া বাসের চাপায় নির্মমভাবে নিহত হয়েছেন বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেশনালসের (বিইউপি) আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ছাত্র আবরার আহমেদ চৌধুরী।

যে বাসের চালক তাকে ‘হত্যা’ করেছে ওই চালকের ভারী যানবাহন চালানোর কোন লাইসেন্স ছিল না। এমনকি বাসটির রুট পারমিটও ছিল না। এমন পরিস্থিতিতে প্রশ্ন উঠেছে নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থাপনা আইন কবে বাস্তবায়ন হবে? আর যে আইনটি করা হয়েছে যেটি কতটা শক্তিশালী হয়েছে।

এ বিষয়ে পুলিশ সদর দফতরের ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সহকারী মহাপুলিশ পরিদর্শক (এআইজি) মোশাররফ হোসেন মিয়াজী বলেন, ‘সড়ক দুর্ঘটনায় আইনটি তৈরি করা হলেও তা প্রয়োগ করা যাচ্ছে না বিধির কারণে। আইনটি কিভাবে প্রয়োগ করা হবে এ জন্য বিধি প্রয়োজন। বিধি তৈরি করবেন সড়ক ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয় বা তাদের অধিনস্ত বিআরটিএ’।

পুলিশ সদর দফতরের একাধিক কর্মকর্তা বলেছেন, সড়ক দুর্ঘটনার মূলে রয়েছে ট্রাফিক ইঞ্জিনিয়ারিং, শিক্ষা এবং ট্রাফিক আইনের যথাযথ প্রয়োগ না থাকা। অনেক চালক রয়েছেন যারা ট্রাফিক সিগন্যাল সম্পর্কে ধারণা নেই।

যাত্রী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হোসেন চৌধুরী বলেছেন. ‘আইনে অনেক ফাঁকফোকর রয়েছে। আইনটিতে দুর্ঘটনায় ক্ষতিপূরণ ও নিহত যাত্রী বা ব্যক্তির বীমা পাওয়ার যে বিধান সেটি বিলুপ্ত করা হয়েছে। এ ধরনের দুর্বল আইন দিয়ে সড়ক দুর্ঘটনা কমিয়ে আনা বা সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানো সম্ভব নয়’।

গত ২৫ জানুয়ারি বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছে, গত বছর ৫ হাজার ৫১৪টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ হাজার ২২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। সড়ক-রেল-নৌপথ ও আকাশপথে মিলিত দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন ৭ হাজার ৭৯৬ জন। এসব দুর্ঘটনায় আরও ১৫ হাজার ৯৮০ জন আহত হয়েছে।

আজকের পত্রিকা/আরবি/এমএইচএস