বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুটেক্স)
সজীব সাগর স্মৃতি আন্তঃবিভাগীয় ফুটবল টুর্নামেন্ট-২০১৯-২০২০ এর ফাইনালে ওয়েট প্রসেসিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ৪৩তম ব্যাচের দলের মুখোমুখি হতে যাচ্ছে অ্যাপারেল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ৪১তম ব্যাচের দল।

সোমবার (২৭ জানুয়ারি) বেলা ১টা ১০ মিনিটে টুর্নামেন্টের ২য় সেমিফাইনালে ওয়েট প্রসেসিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সঙ্গে ডাইস ও কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ৪৪তম ব্যাচ মুখোমুখি হয়। এতে ২-০ গোলে পরাজিত হয় ডাইস।

খেলার প্রথমার্ধে ওয়েটের স্ট্রাইকার মো. তানভীর হোসেন মিরাজের গোলে এগিয়ে যায় তারা। পাল্টাপাল্টি আক্রমণ করেছে ডাইস ৪৪ এর লিমন, আতাইয়া, ফাহিম, জুবায়ের দল তারপরও খেলার প্রথমার্ধে ১-০ গোলে এগিয়ে থাকে ওয়েট৪৩।

খেলার দ্বিতীয়ার্ধে আবারও শুরু হয় আক্রমণ প্রতি আক্রমণ ডাইসের স্টাইকার আতাইয়া রাব্বি অনেকগুলো গোল দেওয়ার সুযোগ হাতছাড়া করেছেন আর অন্য দিকে কথক ফাহিম খেলায় দুর্দান্ত চমক দেখিয়েছেন ।

এতে ওয়েটের ডিফেন্ডার মাহমুদ পারভেজের বাঁ পায়ের দুর্দান্ত এক শটে ২-০ গোলে এগিয়ে যায় ওয়েট।

ম্যাচ শেষে ওয়েটের খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা বললে, তারা জানায় যে, ডাইস৪৪ শক্তিশালী প্রতিপক্ষ ছিল এবং ম্যাচটা অনেক উত্তেজনা পূর্ণ ছিল।

এর আগে রবিবার বেলা ১টা ৩০ মিনিটে অনুষ্ঠিত টুর্নামেন্টের ১ম সেমিফাইনালে ওয়েট প্রসেসিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ৪৪তম ব্যাচের মুখোমুখি হয় অ্যাপারেল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ৪১তম ব্যাচ। তুমুল লড়াইয়ে কোনো গোল ছাড়াই শেষ হয় খেলার প্রথমার্ধ।

দ্বিতীয়ার্ধে এসে হেড দিয়ে গোল করে দলকে এগিয়ে নেয় অ্যাপারেলের তূর্য। এ পর্যায়ের কিছুটা হতাশ হয়ে পড়ে ওয়েট। তাদের এ হতাশাকে কাজে লাগায় অ্যাপারেলের নাফিস আহমেদ। কর্নার কিককে কাজে লাগিয়ে দারুণ এক হেডে গোল পায় সে। ম্যাচ শেষে ২-০ গোলে ফাইনালে ওঠে অ্যাপারেল।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ২৭ নভেম্বর বিরল প্রজাতির ম্যালেরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মারা যায় বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুটেক্স) টেক্সটাইল মেশিনারি ডিজাইন ও মেইনটেন্যান্স (টিএমডিএম) বিভাগের ৪৩তম ব্যাচের ছাত্র সজীবুর রহমান সাগর।

ফুটবল প্রেমী সাগরের স্মৃতিকে ধরে রাখতে বুটেক্স স্পোর্টস ক্লাব আয়োজিত এবারের আন্তঃবিভাগীয় ফুটবল টুর্নামেন্টের নামকরণ করা হয়।

গত ৪ ডিসেম্বর এর উদ্বোধন করা হয়। এবারের আয়োজনে বুটেক্সের বিভিন্ন বর্ষের বিভিন্ন বিভাগের মোট ৩২টি দল অংশগ্রহণ করে।

-বাশার রহিম