ফসলের ক্ষতি হওয়ায় উত্তরবঙ্গে প্রথম দিনাজপুরে ১৫০ জন ক্ষতিগ্রস্থ কৃষককে শস্য বীমা প্রদান করা হয়েছে।

আবহাওয়া সূচকজনিত কারনে ফসলের ক্ষতি হওয়ায় উত্তরবঙ্গে প্রথম দিনাজপুরে ১৫০ জন ক্ষতিগ্রস্থ কৃষককে শস্য বীমা প্রদান করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে দিনাজপুরের বীরগঞ্জে একটি কমিউনিটি সেন্টারে তাদেরকে শস্য বীমা প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে জানানো হয় অতিবৃষ্টি, অনাবৃষ্টি, অধিক তাপমাত্রা, নি¤œ তাপমাত্রা, আদ্রতাসহ আবহাওয়া সম্পর্কিত ঝুঁকির জন্য এই শস্য বীমা প্রদান করা হয়।

প্রথম বারের মতো শস্য বীমার উপর বোরো আবাদের ক্ষতিপুরনের টাকা পেয়ে গতকাল মঙ্গলবার আনন্দে উদ্বেলিত হয়ে এভাবেই প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করছিলেন দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার সম্ভুগাঁও গ্রামের কৃষক মামুনুর রশিদ। মামুনুর রশিদ জানান, এক একর জমিতে এবার বোরো আবাদ করেন তিনি। শেষ সময়ে অতিবৃষ্টির কারনে তার বোরো ক্ষেত পানিতে তলিয়ে যায়। এতে অর্ধেক ধানও পাননি তিনি।

ফলে ক্ষতির মুখে পড়েন তিনি। কিন্তু শস্য বীমার ক্ষতিপুরনের টাকা পেয়ে এখন আর তার কোন লোকসান নেই।

বীরগঞ্জ উপজেলার সৈয়দপুর কল্যানী গ্রামের কৃষক আকসেদ আলী জানান, এক বিঘা জমিতে বোরো আবাদ করেন তিনি। এই এক বিঘা জমির জন্য এবারই প্রথম শস্যনবীমা করে রেখেছিলেন তিনি। ঘন কুয়শার কারনে তারা ধানে পোকা ধরে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়। ৫০ মন ধানের স্থলে ধান পান মাত্র ১৫ মন। এতে লোকসানের মুখে পড়েন ।

আজ শস্য বীমা থেকে সেই লোকসানের টাকা পেলেন তিনি। তিনি জানান, ফসল আবাদ করতে গিয়ে যতই প্রাকৃতিক দুর্যোগ আসুক আর কোন তার চিন্তা নাই।

একই রকম প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন উপজেলার এলাইগাঁও গ্রামের কৃষানী মেরিনা আকতার, বোয়ালমারি গ্রামের কৃষক আব্দুর রহমানসহ বোরো আবাদ করতে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত অন্যান্য কৃষকরা।

এদিকে এবারের জাতীয় বাজেটে সরকার শস্য বীমা চালুর ঘোষনা দিলেও সরকারীভাবে সেই বীমা চালুর আগেই শস্য বীমা পেতে শুরু করেছে দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার কৃষকরা। আবহাওয়া সূচক জনিত কারনে ফসলের ক্ষতি হওয়ায় উত্তরবঙ্গের মধ্যে এই প্রথম দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার ১৫০ জন ক্ষতিগ্রস্ত কৃষককে শস্য বীমা প্রদান করা হয়।

বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের সার্বিক পরামর্শে সুইস এজেন্সী ফর ডেভেলপমেন্ট এ- কো-অপারেশন (এসডিসি) ও গ্রীণ ডেল্টা ইন্স্যুরেন্সের অর্থায়নে এবং সিনজেন্টা ফাউন্ডেশন ফর সাইটাইনেবল এগ্রিকালচার ও ইকো-সোস্যাল ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (ইএসডিও) এর সহযোগিতায় এই শস্যবীমা প্রদান করা হয়।

বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের সার্বিক পরামর্শে সুইস এজেন্সী ফর ডেভেলপমেন্ট এ- কর্পোরেশন ও সিনজেন্টা ফাউন্ডেশন ফর সাইটাইনাবেল এগ্রিকালচারের সহযোগিতায় এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম।

ইকো সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশনের নির্বাহী পরিচালক ড. মুহম্মদ শহীদ উজ জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ভারপ্রাপ্ত বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাবেদ সোয়েব, এসডিসি’র প্রতিনিধি ড. সৈয়দা জিনিয়া রশীদ, সুরক্ষা প্রকল্পের ব্যবস্থাপক আমিনুল মবিন, সিনজেন্টা ফাউন্ডেশনের কান্ট্রি ডিরেক্টর মোঃ ফরহাদ জামিল, বীরগঞ্জ উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তা মনোরঞ্জন অধিকারী, গ্রীন ডেলটা ইন্স্যুরেন্সের আলী তারেক পারভেজ প্রমুখ। শেষে আনুষ্ঠানিকভাবে আবহাওয়া জনিত কারনে ক্ষতিগ্রস্থ ১৫০ জন কৃষককে শস্য বীমার অর্থ প্রদান করা হয়।

হাসান জুয়েল/বীরগঞ্জ